২৯শে জানুয়ারি, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ
শনিবার | রাত ১২:৫৬
ঢাকায় নয় সেপ্টেম্বরে কেনিয়া যাচ্ছেন সানি লিওন!!!
খবরটি শেয়ার করুন:

কান নিয়ে গেল চিলে- তাই সকলে ছুটছে চিলের পিছে। নিজের কানে হাত না দিয়েই এই ছোটাছুটিতে দক্ষ বাঙালি। প্রাত্যহিক জীবনযাত্রা কিংবা জাতীয় জীবন- সত্যতা যাচাইয়ের প্রয়োজন বোধ না করেই নিরন্তর এই ছুটে চলার জ্বলন্ত নিদর্শন ‘ঢাকায় আসছেন সানি লিওন’।

বলিউডের অভিনেত্রী সানি লিওন ঢাকায় আসবেন বলে অনেকদিন ধরেই শোনা যাচ্ছিল। অবশেষে কিছু দিন আগে সেপ্টেম্বরে সানি ঢাকায় আসার বিষয়টি প্রচারের আলোয় আসে সংবাদ মাধ্যমে। আগামী সেপ্টেম্বরের মাঝামাঝি সময়ে ঢাকার বসুন্ধরার কনভেনশন হলে সানি লিওনের একটি কনসার্ট আয়োজনের কথা রয়েছে বলে প্রকাশিত হয়। কিন্তু কোথাও উল্লেখ নেই, এই কনসার্টের আয়োজক কর্তৃপক্ষের কথা।

সাবেক (?) পর্ণস্টার সানি লিওনের বাংলাদেশ ভ্রমণ নিয়ে শুরু হয় নানা তর্ক-বিতর্কের ঝড়। ভাইরাল হয়ে ওঠে একটা প্রশ্ন- কোন জনপ্রিয়তায় বাংলাদেশের মত উন্নয়নশীল দেশের আয়োজক কর্তৃপক্ষ সানিকে অানছেন? কত টাকার বিনিময়ে? চলে আসে দর্শক প্রসঙ্গ- কমপক্ষে ১৫ হাজার টাকার টিকেট কেটে কারা যাবে একবারের জন্য সানিকে চোখের দেখা দেখতে? টিকেটের দামটাও চলে এসেছে সংবাদে, তবু আসেনি টিকেট সংগ্রহের স্থান, প্রতিষ্ঠান বা কোন ব্যক্তির নাম।

ধর্মীয় অনুভূতিপ্রবন দেশ বাংলাদেশ। এই ভাবগাম্ভীর্যে আঘাত হানতে পারে সানি লিওনের ঢাকা ভ্রমণের সংবাদ- এ কথা বোধহয় ভাবেননি কেউ। কিন্তু সোশ্যাল নেটওয়ার্কিং সাইটের গণ্ডি ছাড়িয়ে সমালোচনা ছড়িয়ে পড়ে সবখানে। হুজুর, ধর্মভীরু সাধারণ মানুষ ও বিভিন্ন ধর্মীয় সংগঠন সানির আগমন প্রতিহত করতে সোচ্চার হয়ে ওঠেন। প্রতিবাদ মিছিল ও সভা-সমাবেশের খবর পাওয়া যায় দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে।

এমনকি সানি লিওনের বাংলাদেশ আগমন ঠেকাতে প্রয়োজনে বিমানবন্দন ঘেরাও করার হুঁশিয়ারি দিয়েছেন মুফতি আমিনের পুত্র এবং খেলাফতে ইসলামী বাংলাদেশের আমীর ও ইসলামী ঐক্যজোটের ভাইস চেয়ারম্যান মাওলানা আবুল হাসানাত আমিনী। রোববার বিকেলে দলটির প্রচার সম্পাদক মাওলানা আহলুল্লাহ ওয়াছেল স্বাক্ষরিত এক বিবৃতিতে এ হুঁশিয়ারি দেন তিনি।

আবার চলে আসে চিল প্রসঙ্গ- আসলেই কি ঢাকায় আসছেন সানি লিওন? দেশের যে সকল ইভেন্ট ম্যানেজমেন্ট ফার্ম বিদেশী শিল্পীদের নিয়ে আসেন, তাদের নামও নেই আলোচনায়। খোঁজ নিয়ে জানা যায় ‘ক্রিয়েটা’ নামের একটি ইভেন্ট ম্যানেজমেন্ট ফার্মের- যোগাযোগ করা হলে জানা যায়, প্রতিষ্ঠানটি বড় বড় ইভেন্টের লজিস্টিক সাপোর্ট দিয়ে থাকে। তবে সানি লিওনের বাংলাদেশ কনসার্টের আয়োজক কর্তৃপক্ষ কারা?

অামাদের দেশের তারকাদের কাজ কিংবা ব্যক্তিগত শিডিউল জানতে সরাসরি যোগাযোগ করতে হয় তাদের সঙ্গে। কিন্তু প্রযুক্তি ভিত্তিক উন্নত বিশ্ব এমনকি ভারতীয় তারকাদের কর্মপরিকল্পনা দেখা যায় তাদের ওয়েব সাইটে। নিতান্ত আপডেট না হলে খুঁজে পাওয়া যায় খবরে। যেমন সানি লিওনের কর্মপরিকল্পনায় দেখা যাচ্ছে সেপ্টম্বরের ৫ তারিখে কেনিয়া যাচ্ছেন তিনি। গায়ক শান ও সানির কেনিয়া কনসার্টের খবর পাওয়া যাচ্ছে গুগল নিউজে। কিন্তু কোথায় তার বাংলাদেশ সফরের সংবাদ? ঢাকা কিংবা বাংলাদেশের উল্লেখ নেই তার অফিসিয়াল ওয়েব সাইটেও। তবে কি সানির বাংলাদেশ ভ্রমণ শুধুই গুজব?

পর্ন তারকার ক্যারিয়ার পিছনে ফেলে বলিউডে বেশ পোক্ত জায়গায় আছেন ৩৪ বছর বয়সী মডেল ও অভিনেত্রী। ‘টিনা অ্যান্ড লোলো’ ছবিটি আছে মুক্তির তালিকায়, নিয়মিত উপস্থাপনা করছেন এমটিভির জনপ্রিয় শো ‘স্প্লিটস ভিলা’। ভারতের বাইরে শো করতে যাওয়ার জন্য সরকারের অনুমতি নিতে হয় তাকে। তাই হুট করেই বাংলাদেশ ভ্রমণ সম্ভব নয় ব্যস্ত তারকা সানি লিওনের। তবে কেন ‘বাংলাদেশে আসছেন সানি লিওন’ এমন গুজব ছড়ানোর কার্যকারণ বোঝা যাচ্ছে না, খুঁজে পাওয়া যাচ্ছে না কারা আছেন এমন গুজবের পিছনে। আর যদি সত্যি হয়, তবে কোথায় সানির কনসার্টের আয়োজক কর্তৃপক্ষ?

error: দুঃখিত!