১২ই জুলাই, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ
শুক্রবার | সকাল ১১:৫৪
Search
Close this search box.
Search
Close this search box.
টংগিবাড়ীতে দুই চেয়ারম্যান প্রার্থীসহ ৪ জনের মনোনয়ন বাতিল
খবরটি শেয়ার করুন:

মুন্সিগঞ্জ, ২৩ এপ্রিল ২০২৪, নিজস্ব প্রতিনিধি (আমার বিক্রমপুর)

দ্বিতীয় ধাপে আগামী ২১ মে অনুষ্ঠিতব্য মুন্সিগঞ্জের টংগিবাড়ী উপজেলায় দুই চেয়ারম্যান প্রার্থীসহ ৪ জনের মনোনয়ন বাতিল হয়েছে।

আজ মঙ্গলবার দুপুরে যাচাই-বাছাই শেষে এই সিদ্ধান্ত জানানো হয়। তবে, আইন অনুযায়ী তারা আপিলের সুযোগ পাবেন।

বাতিল হওয়া দুই চেয়ারম্যান প্রার্থী হলেন- আরিফুল ইসলাম হাওলাদার ও রাহাত খান রুবেল। অন্যদিকে, ভাইস চেয়ারম্যান পদে অবৈধ হওয়া দুই প্রার্থী হলেন রেজাউর রহমান ডিউক মাঝি ও নূর মোহাম্মদ শেখ।

টংগিবাড়ী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও উপজেলা নির্বাচনে সহকারী রিটার্নিং অফিসার আসলাম হোসাইন এসব তথ্য নিশ্চিত করেন।

তিনি বলেন, তথ্য গোপন করায় যাচাই-বাছাই শেষে দুই চেয়ারম্যান প্রার্থী ও দুই ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থীর মনোনয়ন অবৈধ ঘোষণা করা হয়।

জানা যায়, টংগিবাড়ী উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে ৬ জন মনোনয়ন জমা দেন।  এরা হলেন- বর্তমান চেয়ারম্যান কাজী আবদুল ওয়াহিদ, প্রয়াত উপজেলা চেয়ারম্যান জগলুল হালদার ভুতুর ছেলে সদ্য দিঘিরপাড় ইউপি চেয়ারম্যান পদ হতে পদত্যাগ করা আরিফুল ইসলাম হালদার, জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শেখ লুৎফর রহমানের পুত্র গোলাম রাব্বানী শান্ত, সাবেক ভাইস চেয়ারম্যান রাহাত খান রুবেল, মাহবুর রহমান এবং কামারখাড়া ইউপির সাবেক সদস্য সাদেকুর রহমান দপ্তরী।

ভাইস চেয়ারম্যান পদে তিনজন প্রার্থী মনোনয়নপত্র দাখিল করেছিলেন। এরা হলেন- বর্তমান ভাইস চেয়ারম্যান নাহিদ খান, উপজেলা যুবলীগের সভাপতি রেজাউর রহমান ডিউক ও সাবেক ভাইস চেয়ারম্যান নুর মোহাম্মদ শেখ।

এই উপজেলায় মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে দাখিলকৃত ৪ প্রার্থীরই মনোনয়ন বৈধ ঘোষণা করা হয়। এরা হলেন- বর্তমান মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট নাসিমা আক্তার, সাবেক মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান এমিলি পারভীন, তার মেয়ে ফারজানা হোসেন লিজা ও সাবেক জেলা পরিষদ সদস্য আকলিমা আক্তার।

তফসিল অনুযায়ী, টংগিবাড়ী ও লৌহজং উপজেলায় সকল প্রার্থীদের মনোনয়ন যাচাই-বাছাই হয় আজ ২৩ এপ্রিল। যাচাই-বাছাইয়ে বাদ পড়াদের আপিল গ্রহণ হবে ২৪ থেকে ২৬ এপ্রিল পর্যন্ত। আর আপিল নিস্পত্তি হবে ২৭ থেকে ২৯ এপ্রিল পর্যন্ত। প্রার্থিতা প্রত্যাহারের শেষ সময় ৩০ এপ্রিল। প্রতীক বরাদ্দ ২ মে এবং ব্যালটপেপার পদ্ধতিতে ভোটগ্রহণ হবে আগামী ২১ মে।

error: দুঃখিত!