১৭ই জুলাই, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ
বুধবার | বিকাল ৫:০৯
Search
Close this search box.
Search
Close this search box.
মুন্সিগঞ্জ জেলা আ. লীগ সভাপতির ৭৯তম জম্ম বার্ষিকী পালিত
খবরটি শেয়ার করুন:

মুন্সিগঞ্জ, ১১ মে, ২০২১, বিশেষ প্রতিনিধি (আমার বিক্রমপুর)

মুন্সিগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি, জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান, বঙ্গবন্ধুর চীফ সিকিউরিটি অফিসার ও মুক্তিযুদ্ধে ঢাকা জেলা মুজিব বাহিনীর অধিনায়ক, বীর মুক্তিযোদ্ধা মো. মহিউদ্দিন (সাবেক এম.পি) এর ৭৯তম জম্ম বার্ষিকী পালিত হয়েছে।

তিনি ১৯৪২ সালের এই দিনে মুন্সিগঞ্জ জেলাধিন সদর উপজেলার অধিন মুন্সিগঞ্জ পৌরসভার কোর্টগাঁও নামক গ্রামে এক সম্ভ্রান্ত মুসলিম পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন।

তার পিতা হাজি ওসমান গনি সাহেব ছিলেন তৎকালীন মহকুমা আদালতের মুক্তার এবং মা মলুদা বেগম ছিলেন একজন আদর্শবান গৃহিণী, পিতা মাতার আদর স্নেহে লালিত-পালিত কিশোর মো. মহিউদ্দিন ছিলেন একজন ডানপিটে এবং ক্রীড়ামোদী ও সাহসী যুবক। স্কুল কলেজ জীবন থেকেই ছাত্র রাজনীতিতে জড়িত ছিলেন তিনি, ছিলেন ঢাকা ইউনিভার্সিটি ইকবাল হল ছাত্র সংসদের ক্রীড়া বিষয়ক সম্পাদক এবং ডাকসুর সদস্য। তৎকালীন ডাকসুর ভিপি প্রবীণ। সেই সুত্রে এবং বঙ্গবন্ধুর একান্ত ইচ্ছায় তিনি বঙ্গবন্ধুর একান্ত নিরাপত্তার দায়িত্বে নিয়োজিত হন।

বঙ্গবন্ধুর পাশে থেকে দেখে তিনি রাজনীতির পরিপক্কতা অর্জন করেন, বঙ্গবন্ধুকে খুনিরা হত্যার পর মো. মহিউদ্দিনকে জেল খানায় বন্দি করা হয়। সেই জেলেই তার পাশের কামরায় থাকা জাতীয় চার নেতাকে খুনিরা গুলি করে হত্যা করে।

পরবর্তীতে বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনা দেশে ফেরত আসলে মো. মহিউদ্দিন বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের রাজনীতিতে সক্রিয়ভাবে জড়িয়ে পরেন। ১৯৮৬ সালের জাতীয় সংসদ নির্বাচনে তিনি সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন।

তিনি ১৯৮১ সালে মুন্সিগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হন এবং ১৯৯১ সালে জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি নির্বাচিত হন। অধ্যাবদি তিনি জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি পদে দায়িত্ব পালন করছেন।

তিনি বর্তমানে জেলা পরিষদের দুই বারের নির্বাচিত চেয়ারম্যান পদেও দায়িত্বরত আছেন। বর্ণিল রাজনৈতিক জীবনের অধিকারী মুন্সিগঞ্জের লৌহ মানব, বঙ্গবন্ধুর মহিউদ্দিন খ্যাত এই নেতার আজ ৭৯তম জন্ম বার্ষিকী। দেশের ভয়াবহ করোনা ভাইরাস বিস্তাররোধে বঙ্গবন্ধু কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশনামতে সকলের সুরক্ষায় স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার আহ্বানে জম্মদিন আনুষ্ঠানিক ভাবে না করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। তাই তার জন্মদিনে অভিনন্দন ও শুভেচ্ছা জানান জেলা-উপজেলা আওয়ামী লীগ ও অঙ্গ সংগঠনের সকল নেতৃবৃন্দ। নেতার জন্য সকলেই মহান আল্লাহ’র নিকট দোয়া প্রার্থনা করে তার সুস্থতা ও দীর্ঘজীবন কামনা করেন।

error: দুঃখিত!