১৮ই সেপ্টেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ
শনিবার | রাত ৮:৩৮
শ্রীনগরে ভাগ্যকুল নাগরনন্দি খালপাড় বেহাল রাস্তায় জলাবদ্ধতা
খবরটি শেয়ার করুন:

মুন্সিগঞ্জ, ১৩ জুলাই, ২০২১, শ্রীনগর প্রতিনিধি (আমার বিক্রমপুর)

মুন্সিগঞ্জের শ্রীনগর উপজেলার ভাগ্যকুল ইউনিয়নের কামারগাঁও এলাকার নাগরনন্দি খালপাড় নামক বেহাল রাস্তায় জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হয়েছে।

একযুগেও রাস্তাটির সংস্কার কাজ সম্ভব হয়ে উঠেনি। দীর্ঘদিনের সংস্কারের অভাবে প্রায় আঁধা কিলোমিটার ইট সলিং বেহাল রাস্তাটি দিনদিন মানুষের চলাচলে অনুপযোগী হয়ে পড়ছে। এতে ভাগ্যকুল ইউনিয়নের ৪ ও ৫নং ওয়ার্ডের কয়েক হাজার মানুষের যাতায়াতে চরম দুর্ভোগের সৃষ্টি হচ্ছে।

অপরদিকে, রাস্তার পশ্চিম পাশে খালটির বিভিন্ন স্থানে বাঁধ ও দখলের ফলে খালে পানি প্রবাহে বাঁধাগ্রস্ত হয়ে রাস্তার দক্ষিন পাশের অনেকাংশে জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হচ্ছে।

সরেজমিনে দেখা গেছে, কামারগাঁও এলাকার নাগরনন্দি খালপাড় বেহাল রাস্তার নাজুক চিত্র। প্রায় আঁধা কিলোমিটার ইট সলিং পুরো রাস্তাই খানাখন্দে ভরপুর। রাস্তাটি শ্রীনগর-দোহার আন্ত:সড়কটির সংযোগ রাস্তা হিসেবে এলাকাবাসীর কাছে গুরুত্বপূর্ণ। দেখা গেছে, রাস্তার মোকার দোকানের সামনে জলাবদ্ধ হয়ে পড়ছে। এছাড়া একই রাস্তার পিআর হোসেনের দোকানে সামনে রাস্তার ওপর একটি ড্রেজার পাইপ লাইন টানা হয়েছে। ড্রেজার পাইপের পানি নিস্কাশনে তার পাশেই রাস্তা নিচে ফুঁট করে এসব পানি খালে ফেলা হচ্ছে।

লক্ষ্য করা গেছে, ড্রেজারের পানি খালপাড় উপচে চলাচলের রাস্তায় জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হচ্ছে। রাস্তার এই পরিস্থিতিতে ভাঙাচূড়া রাস্তায় মানুষের চলাচলে ভোগান্তির পরিমান আরো বেড়েছে।

মো. বাদল, পিয়ার আলী, শারমিন বেগম, অপু মিয়া, খলিলসহ অনেকেই বলেন, প্রায় ১২ বছর যাবত রাস্তায় ইট বিছানো হয়েছিল। এর পর আর রাস্তা সংস্কার হয়নি। বেহাল রাস্তার কারণে মানুষের যাতায়াতে দুর্ভোগ হচ্ছে। বিশেষ করে শিশুসহ অসুস্থ্য রোগীরা নাজুক ও জলাবদ্ধ রাস্তায় এসে ভোগান্তির শিকার হচ্ছেন। রাস্তাটি সংস্কার কাজের জন্য স্থানীয় জনপ্রতিনিধি ও সংশ্লিষ্টদের সুদৃষ্টি কামনা করেন স্থানীয়রা।

ভাগ্যকুল ইউনিয়নের ৫নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য মোকাজ্জলের কাছে এ বিষয়ে জানতে যোগাযোগ করা হলে তার অসুস্থতার জন্য কথা বলা সম্ভব হয়নি।

এ ব্যাপারে ৪নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য মোশারফ জানান, রাস্তাটি তার আমলে কাজ হয়নি। গত বছর তিনি রাস্তার রিপায়ারিংয়ের কিছু কাজ করেন। রাস্তাটি পাকা করণের জন্য টেন্ডারের অপেক্ষায় থাকা কথা বলেন তিনি। রাস্তার ওপর ড্রেজার পাইপ লাইনটি তার নিজের বলে জানান।

তিনি বলেন, দুই এক দিনের মধ্যেই ড্রেজারের কাজ শেষ হয়ে গেলে পাইপ লাইন খুলে ফেলবেন তিনি। ড্রেজারের পানিতে রাস্তার দক্ষিন দিকের অনেকাংশে জলাবদ্ধতার বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন বৃষ্টির পানির কারণে রাস্তার ওই অংশে জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হয়েছে।

error: দুঃখিত!