১৭ই জুলাই, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ
বুধবার | সকাল ৯:৫১
Search
Close this search box.
Search
Close this search box.
মোল্লাকান্দিতে সং.ঘ.র্ষে নারীসহ গুলিবিদ্ধ দুই
খবরটি শেয়ার করুন:

মুন্সিগঞ্জ, ১২ জুন ২০২৪, নিজস্ব প্রতিনিধি (আমার বিক্রমপুর)

মুন্সিগঞ্জ সদরের মোল্লাকান্দিতে আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে আওয়ামী লীগ সমর্থিত দুই পক্ষের সংঘর্ষে নারীসহ দুইজন গুলিবিদ্ধ হয়েছেন।

আজ বুধবার বিকাল সাড়ে ৩টার দিকে ইউনিয়নের কংসপুরা এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

গুলিবিদ্ধরা হলেন- কংসপুরা এলাকার মনু মোল্লার স্ত্রী সেরাজুন আক্তার (৩৮) ও একই এলাকার মনির হোসেন সরকারের পুত্র সজিব সরকার (৩০)। এরা স্থানীয় ইউপি সদস্য রাসেল হোসেনের সমর্থক। আহতদের প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে।

স্থানীয়রা জানান, সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান মোস্তফা মোল্লা ও ৪ নং ওয়ার্ড ইউপি সদস্য রাসেল হোসেন সমর্থক দুই পক্ষের মধ্যে এলাকায় আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে দীর্ঘদিন ধরে বিরোধ চলছিলো। বুধবার দুপুরে বিরোধ নিরসনে ইউপি চেয়ারম্যান রিপন হোসেনসহ ইউনিয়নের গণ্যমান্য ব্যক্তিরা চরডুমুরিয়া বাজারে সালিশ-মীমাংসায় বসেন। সেখানে সংঘর্ষের জন্য দায়ী ১১ জনকে এলাকা ত্যাগ করার নির্দেশনা দেয়া হয়। দুই পক্ষই সালিশের রায় মেনে নিয়ে বাসায় ফিরে গেলেও বিকালেই তারা সংঘর্ষে জড়ায়।

মোল্লাকান্দির সংরক্ষিত (৪, ৫ ও ৬ নং ওয়ার্ড) ইউপি সদস্য পলি আক্তার বলেন, ‘ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আজাহার মোল্লার অনুসারী শাকিল, ইউসুফ, শহিদুল্লাহ, আল আমিন, রুবেল, সাজ্জাদ হোসেন খোকা অস্ত্র নিয়ে আমাদের বাড়িতে ঢুকে এলোপাতাড়ি গুলি করে। এসময় আমি প্রাণে বাঁচতে টয়লেটে গিয়ে লুকাই। তখন আতঙ্ক সৃষ্টি করতে ককটেল ফুটায় তারা।’

মুন্সিগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালের জরুরি বিভাগের চিকিৎসক প্রান্ত সরদার বলেন, ‘গুলিবিদ্ধ অবস্থায় দুইজনকে হাসপাতালে আনা হয়। উভয়ের শরীরে একাধিক গুলির চিহ্ন রয়েছে। প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে তাদের ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে।’

এ বিষয়ে মোল্লাকান্দির সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান মোস্তফা মোল্লার বক্তব্য পাওয়া যায়নি।

মুন্সিগঞ্জ সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আমিনুল ইসলাম বলেন, ‘দুই পক্ষের পূর্ব বিরোধ মীমাংসায় বিচার-সালিশের রায় না মেনে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে তারা। পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে। আইনগত ব্যবস্থা প্রক্রিয়াধীন।’

error: দুঃখিত!