৯ই ডিসেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ
শুক্রবার | দুপুর ১২:১৬
মুন্সিগঞ্জে বিয়ের দাবিতে প্রেমিকের বাড়িতে স্কুল ছাত্রীর অনশন
খবরটি শেয়ার করুন:

মুন্সিগঞ্জ, ১৭ নভেম্বর, ২০২২, নিজস্ব প্রতিনিধি (আমার বিক্রমপুর)

মুন্সিগঞ্জের শ্রীনগরে বিয়ের দাবীতে প্রেমিকের বাড়ীতে অনশন করেছে নবম শ্রেণির এক ছাত্রী।

গেল সোমবার বিকেল ৪টার দিকে উপজেলার হাসাড়া ইউনিয়নের মধ্য হাসাড়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়,  নবম শ্রেনীর ঐ ছাত্রীর সাথে গত ৩ বৎসর পূর্বে পাশ্ববর্তী মধ্যহাসাড়া গ্রামের বারেক শেখের ছেলে মালয়েশিয়া প্রবাসী ইমন (২৩) এর মোবাইল ফোনে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে উঠে। গত ৪ সেপ্টেম্বর প্রেমিক ইমন বিদেশ থেকে এসে ঐ ছাত্রীকে নিয়ে বিভিন্ন জায়গায় ঘোরাফেরা করে। কিন্তু হঠাৎ করেই প্রেমিকাকে না জানিয়ে প্রেমিক ইমন পাশের এলাকার অন্য মেয়েকে গোপনে বিয়ে করে। সংবাদ পেয়ে প্রেমিকা, তার মা ও খালাসহ ঘটনার দিন প্রেমিকের বাড়ীতে অবস্থান নিলে প্রেমিকসহ তার বাড়ীর লোকজন পালিয়ে যায়।

নবম শ্রেনীর ছাত্রীর মা বলেন, আমি গরীব মানুষ। আমার মেয়েটা বিয়ে করবে বলে ইমন আমাদের বাড়ীতে কয়েকদিন আসে এবং আমাকে না জানিয়ে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে স্কুল থেকে আমার মেয়েকে নিয়ে বিভিন্ন জায়গায় ঘোরাফেরা করত। ইমন গোপনে তার এক খালাতো বোনকে বিয়ে করবে শুনে আমার মেয়ে ইমনের বাড়ীতে গিয়ে অবস্থান নেয়। পরে ঐ ওয়ার্ডের মেম্বার এসে আমাদের জোরপূর্বক তাদের বাড়ী থেকে তাড়িয়ে দেয়। আমি কয়েকবার হালিম মাস্টারের কাছে গিয়ে তার হাতে পায়ে ধরছি যে, আমার মেয়েটাকে ইমন বিয়ে করবে বলছে এবং অনেকদিন ধরে মেয়েকে নিয়ে ঘোরাঘুরি করছে। এখানে আপনার মেয়েটাকে বিয়ে দিলে আমার মেয়েটা মারা যাবে। তিনি আমার কথা শুনে নাই।

এ ব্যাপারে হাসাড়া কালী কিশোর স্কুল এন্ড কলেজের ইংরেজি শিক্ষক আ. হালিম মাস্টারে কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, কেউ আমার কাছে আসেনি। আসলে না হয় একটা কথা ছিল।

প্রেমিক ইমন এর বাবা বারেক শেখ বলেন, তারাতো আগে আমার কাছে আসেনি। এখন কিছু করার নেই।

হাসাড়া ইউনিয়নের ৫ নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য নুরুল ইসলাম বলেন, আমি কাউকে তাড়িয়ে দেইনি।

error: দুঃখিত!