১৮ই জুলাই, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ
বৃহস্পতিবার | দুপুর ২:২৩
Search
Close this search box.
Search
Close this search box.
মুন্সিগঞ্জে নিয়ম ভেঙে আ. লীগের কমিটি থেকে হঠাৎ বাদ সা. সম্পাদক
খবরটি শেয়ার করুন:

মুন্সিগঞ্জ, ২২ জুন ২০২৪, শিহাব আহমেদ (আমার বিক্রমপুর)

মুন্সিগঞ্জের টংগিবাড়ীতে উপজেলা আওয়ামী লীগের কমিটি থেকে হঠাৎ করেই ভোটে নির্বাচিত সাধারণ সম্পাদক আহসান কবির হালদারকে বাদ দিয়ে নতুন আরেকজনকে দায়িত্ব দিয়ে ৩৫ সদস্য বিশিষ্ট পূর্ণাঙ্গ কমিটি ঘোষণা করা হয়েছে। এ নিয়ে রাজনৈতিক মহলে উত্তেজনা বিরাজ করছে।

জানা গেছে, আওয়ামী লীগের গঠনতন্ত্র অনুযায়ী একটি চলমান কমিটি থেকে কাউকে বাদ দিতে হলে হয় তাকে বহিস্কার করতে হয় নাহলে পুরো কমিটি বিলুপ্ত করে নতুন কমিটি ঘোষণা করতে হয়।

এক্ষেত্রে আহসান কবির হালদারকে বহিস্কার বা টংগিবাড়ী উপজেলা আওয়ামী লীগের কমিটি বিলুপ্ত কোনটিই করা হয়নি বলে আমার বিক্রমপুর কে নিশ্চিত করেন জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শেখ লুৎফর রহমান।

শনিবার বিকালে এ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘উনি (আহসান কবির হালদার) অন্য একটি রাষ্ট্রের নাগরিক। তাছাড়া হত্যা মামলায় অভিযুক্ত হিসেবে জেলে রয়েছেন। সংগঠনতো আর থেমে থাকবে না। তাই তাকে বাদ দেয়া হয়েছে।’

প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘টংগিবাড়ী উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক পদ থেকে আহসান কবির হালদারকে বহিস্কার করা হয়নি বা কমিটিও বিলুপ্ত করা হয়নি।’

জানা যায়, নির্বাচিত সাধারণ সম্পাদক আহসান কবির হালদারকে বাদ দিয়ে গেল ২০ জুন ৩৫ সদস্য বিশিষ্ট পূর্ণাঙ্গ কমিটি ঘোষণা করে মুন্সিগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগ। এর আগে ২০২১ সালের ৬ অক্টোবর টংগিবাড়ী উপজেলা আওয়ামী লীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলনে সভাপতি পদে হাফিজ আল আসাদ বারেক ও সাধারণ সম্পাদক পদে আহসান কবির হালদার নির্বাচিত হন।

২০ জুন ঘোষিত নতুন কমিটিতে সাধারণ সম্পাদক পদ থেকে কোনরকম ঘোষণা ছাড়াই আহসান কবির হালদারকে বাদ দিয়ে বেলায়েত হোসেন লিটন মাঝিকে সাধারণ সম্পাদক করা হয়।

২০২১ সালে যে সম্মেলন হয় সেখানে আহসান কবির হালদারের প্রাপ্ত ভোট ছিলো ২৩৬। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী গোলাম রাব্বানী শান্ত পেয়েছিলেন ১৪৪ ভোট। অপর প্রতিদ্বন্দ্বী বেলায়েত হোসেন লিটন মাঝি পান ৬৯ ভোট। সর্বনিম্ন অবস্থানে থাকা সেই বেলায়েত হোসেন লিটন মাঝিকেই এই বির্তকিত কমিটির সাধারণ সম্পাদক উল্লেখ করা হয়েছে। আর দ্বিতীয় স্থানে থাকা গোলাম রাব্বানী শান্তকে করা হয়েছে যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক।

আহসান কবির হালদার জেলে থাকায় তার বক্তব্য পাওয়া যায়নি। তার পক্ষে কামারখাড়া ইউপি চেয়ারম্যান ও কবির হালদারের বড় ভাই জগলুল হালদার ভুতুর পুত্র লুৎফর রহমান হালদার (খুকু) বলেন, ‘কেউ যদি অন্য কোন দেশের নাগরিক হয়েও থাকে তাকে দল থেকে এভাবে রাতের আধারে বাদ দেয়া যাবে সেরকমটা আওয়ামী লীগের গঠণতন্ত্রের কোথাও নেই। প্রতিহিংসাপরায়ণ হয়ে তারা এই কাজ করেছে।

তিনি বলেন, ‘এ বিষয়ে লিখিতভাবে দলের সভাপতি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরসহ সংশিষ্টদের জানিয়েছি। আমরা এ বিষয় নিয়ে বিন্দুমাত্রও বিচলিত নই।’

এদিকে শনিবার দুপুরে এ ঘটনার প্রতিবাদে উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি হাফিজ আল আসাদ বারেকের নেতৃত্বে জেলা কমিটির বিরুদ্ধে টংগিবাড়ী- ঢাকা সড়ক অবরোধ, টায়ার জালিয়ে বিক্ষোভ এবং মানববন্ধন কর্মসূচি পালিত হয়েছে।

error: দুঃখিত!