১৮ই জুলাই, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ
বৃহস্পতিবার | বিকাল ৩:০৯
Search
Close this search box.
Search
Close this search box.
মুন্সিগঞ্জে ইউপি চেয়ারম্যানের অবৈধ গরুর হাট উচ্ছেদ করলো প্রশাসন
খবরটি শেয়ার করুন:

মুন্সিগঞ্জ, ২৮ জুলাই, ২০২০, শ্রীনগর প্রতিনিধি (আমার বিক্রমপুর)

মুন্সিগঞ্জের শ্রীনগরের কেদারপুর অস্থায়ী পশুর হাট ইজারা না নিয়েই ভাগ্যকূল ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান অবৈধ হাট বসানোর পর তা উচ্ছেদ করেছে উপজেলা প্রশাসন।

মঙ্গলবার (২৮ জুলাই) দুপুরে শ্রীনগর উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোসাম্মৎ রহিমা আক্তারের নির্দেশে র‌্যাব ও পুলিশ নিয়ে হাটে উপস্থিত হন উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) কেয়া দেবনাথ।

তিনি গরুর পাইকারদেরকে গরু নিয়ে হাট থেকে চলে যাওয়ার নির্দেশ দেন। পরে হাটের স্থাপনা উচ্ছেদ করেন।

এর আগে ভাগ্যকূল ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান কাজী মনোয়ার হোসেন শাহাদাৎ ইজারা না নিয়েই কেদারপুর অস্থায়ী গরুর হাট বসান। এ নিয়ে গতকাল একটি প্রতিবেদন প্রকাশ করে ‘আমার বিক্রমপুর’

জানা যায়, গত বছর এই হাটটির ইজারা মূল্য উঠেছিল প্রায় ৪৮ লাখ টাকা। এই বছর সরকারীভাবে হাটটির কাংখিত মূল্য নির্ধারণ করা হয় ৩০ লাখ ২০ হাজার টাকা।

কিন্তু স্থানীয় চেয়ারম্যান কাজী মনোয়ার হোসেন শাহাদাতের নেতৃত্বে সরকারের রাজস্ব ফাঁকি দেওয়ার জন্য গঠিত হয় সিন্ডিকেট। সিন্ডিকেটটি একাধিক সিডিউল কিনলেও যোগসাশজে সর্বোচ্চ প্রায় ১১ লাখ টাকায় ইজারা মূল্য হাঁকে। পরে সরকারী ভাবে হাটের ইজারা স্থগিত হয়ে যায়।

কিন্তু কোন নিয়ম নীতির তোয়াক্কা না করে শাহাদাৎ চেয়ারম্যান কেদারপুর বাঁশের সারি গেড়ে সামিয়ানা টাঙ্গিয়ে গরু বেঁচা কেনা শুরু করেছে।

তবে পাবনা,বেড়া ও সিরাজগঞ্জ থেকে আসা একাধিক পাইকার জানান, তারা এই হাট থেকে গরু অন্যত্র সরিয়ে নেওয়ার সময় হাটের আয়োজকরা তাদের কাছ থেকে গরু প্রতি হাটের বাশ খুটি বাবদ ১শ থেকে ৫শ করে টাকা রেখে দেয়। তাদের অভিযোগের সত্যতা জানার চেষ্টা করলে হাট আয়োজকদের কাউকে পাওয়া যায়নি।

error: দুঃখিত!