৩০শে নভেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ
মঙ্গলবার | রাত ৪:৫৯
গজারিয়ায় যুবক খুন, ছাত্রলীগ সম্পাদকের হাত ধরেই রাজনীতিতে আসেন সংগ্রাম!
খবরটি শেয়ার করুন:

মুন্সিগঞ্জ, ২৫ সেপ্টেম্বর, ২০২১, বিশেষ প্রতিনিধি (আমার বিক্রমপুর)

মুন্সিগঞ্জের গজারিয়া উপজেলার হোসেন্দী ইউনিয়নের ইসমানিরচর এলাকার সাবেক ছাত্রলীগ নেতা সাজিদুল ইসলাম মিম (২২) হত্যাকান্ডের ঘটনায় মূল অভিযুক্ত হোসেন্দী ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক সংগ্রাম মোল্লা (২৪)।

স্থানীয় ছাত্রলীগের একটি অংশের দাবি, সংগ্রাম মোল্লা আগে থেকেই বিভিন্ন অপকর্মের সাথে জড়িত। তার বিরুদ্ধে থানায় গজারিয়ার একটি ডকইয়ার্ডে ঢুকে চুরির মামলাও রয়েছে। এছাড়া সংগ্রাম মোল্লা পদ পাওয়ার আগে ছাত্রলীগের কোন মিটিং-মিছিলে দেখা যায়নি। এত কিছু জেনেও তাকে পদায়ন করেছেন উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক আহমেদ রুবেল।

আরও পড়তে পারেন: মুন্সিগঞ্জে হাতুড়ি পিটুনিতে ছাত্রলীগ নেতার মৃত্যু

তাদের দাবি, নিজের গ্রুপ ভারি করতেই সবকিছু জেনেশুনে তাকে পদে আনেন রুবেল।

গত বৃহস্পতিবার (২৩ সেপ্টেম্বর) সকালে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের আইসিইউতে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যায় সাজিদুল ইসলাম মিম (২২)। সে উপজেলার হোসেন্দী এলাকার ইসমানিরচর গ্রামের আব্দুস সাত্তার মিয়ার ছেলে। এর আগে গত ১৫ সেপ্টেম্বর দুপুরে হোসেন্দী ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক সংগ্রাম মোল্লা (২৪) দলবল নিয়ে তাকে লোহার হাতুড়ি দিয়ে পিটিয়ে গুরুতর আহত করে।

অভিযোগের বিষয়ে জানতে চাইলে গজারিয়া উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক আহমেদ রুবেল বলেন, আগের মামলা সম্পর্কে তিনি জানতেন না। সংগ্রাম মোল্লার সাথে তার সংশ্লিষ্টতার ব্যাপারে জানতে চাইলে তিনি পাল্টা প্রশ্ন করে বলেন, এটা কোন প্রশ্ন হইলো?। পরবর্তীতে তিনি আবার বলেন, আগের মামলায় সে অপরাধী সাব্যস্ত হয় নাই। সেগুলো থেকে সে খালাস পেয়ে আসছে।

আহমেদ রুবেল জানান, ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগ থাকায় সংগ্রাম মোল্লাকে ছাত্রলীগ থেকে অব্যাহতি দেয়া হয়েছে।

তবে গজারিয়া উপজেলা ছাত্রলীগের উপ দপ্তর সম্পাদক আলকামা দেওয়ান জানান, অব্যাহতি দেয়া নিয়ে আনুষ্ঠানিক কোন পত্র উপজেলা ছাত্রলীগের পক্ষ থেকে দেয়া হয়নি। বিষয়টি প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।

গজারিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) রইছ উদ্দিন ‘আমার বিক্রমপুর’ কে জানান, এ ঘটনায় এখন পর্যন্ত কাউকে আটক করা যায়নি। আসামীদের গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।

error: দুঃখিত!