৩০শে মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ
বৃহস্পতিবার | বিকাল ৩:৫৩
Search
Close this search box.
Search
Close this search box.
মুন্সিগঞ্জে হেফাজত নেতা নূর হোসাইন নূরানী গ্রেফতার
খবরটি শেয়ার করুন:

মুন্সিগঞ্জ, ২৩ এপ্রিল, ২০২১, সদর প্রতিনিধি (আমার বিক্রমপুর)

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা কে বিভিন্ন ধরনের হুমকি দিয়ে ৬ মাসের মধ্যে সরকার পতনের হুমকি দেওয়া হেফাজত নেতা ও খতমে নবুওয়াত আন্দোলন নামক একটি সংগঠনের প্রধান মুফতি নূর হোসাইন নূরানী পুলিশের হাতে গ্রেফতার হয়েছেন।

গতকাল বৃহস্পতিবার (২২ এপ্রিল) রাত ১২ টা’র দিকে মুন্সিগঞ্জ পৌরসভার মুন্সিরহাট এলাকা থেকে তাকে গ্রেফতার করে থানা ও ডিবি পুলিশ।

সদর থানার ওসি আবু বকর সিদ্দিক শুক্রবার (২৩ এপ্রিল) রাত ১ টা’র দিকে ‘আমার বিক্রমপুর’ কে এ তথ্য নিশ্চিত করেন। তিনি জানান, গত ২৮ মার্চ হেফাজতে ইসলামের ডাকা হরতালের দিন সিরাজদিখান উপজেলার রাজানগর ইউনিয়নে আওয়ামী লীগ নেতাকর্মীদের বাড়ি-ঘড়ে হামলা, ভাঙচুর ও অগ্নিসংযোগের ঘটনায় উস্কানিদাতা ও বর্ণিত ঘটনায় দায়েরকৃত মামলার অজ্ঞাত আসামী হিসেবে তাকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

আরও পড়তে পারেন: মুন্সিগঞ্জে হেফাজতের কর্মসূচি থেকে ৬ মাসের মধ্যে সরকার পতনের হুমকি (ভিডিওসহ)

নূরানী হেফাজতে ইসলামের কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য। বিভিন্ন সময় সরকারবিরোধী বক্তব্য দিয়ে সে নিজেকে প্রচার করতেন। সখ্যতা আছে হেফাজত নেতা মামুনুল হক, বাবুনগরী, আব্দুল হামিদ মধুপুর সহ হেফাজতের কেন্দ্রীয় কমিটির অসংখ্য নেতাদের সাথে।

গেলো ২ এপ্রিল হেফাজতের হরতালের দিন মুন্সিরহাটে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা কে নিমকহারাম ও মীরজাফর বলে মন্তব্য করেন। তিনি প্রধানমন্ত্রীকে উদ্দেশ্য করে বলেন, আপনি যে ১৮ জনের রক্ত ঝরালেন সে রক্তের কি ক্ষমতা আপনি ৬ মাসের মধ্যেই তা টের পাবেন। তিনি বলেন, মোদীকে এনে যারা দেশকে কসাই খানা বানিয়েছে তাদের এদেশে ক্ষমতায় থাকার অধিকার নেই। মুন্সিগঞ্জের জেলা প্রশাসক ও পুলিশ সুপারকে উদ্দেশ্য করে নূর হোসাইন বলেন, ‘মুন্সিগঞ্জ-৩ আসনের এমপি মৃণাল কান্তি দাসের ভাতিজা আপন দাসকে যদি আয়ত্তে আনতে না পারেন, সে যদি বেশি বাড়াবাড়ি করে তাহলে চ্যালেঞ্জ করছি তাকে মুন্সিগঞ্জে প্রবেশ করতে দেওয়া হবে না।’ তিনি সেসময় বলেন, ‘এখন থেকে আমাদের নিজস্ব গোয়েন্দা থাকবে। দেশে হিন্দু, বৌদ্ধ, খ্রিষ্টান ধর্মের যারা থাকবেন, তারা যদি ইসলামের বিরুদ্ধে চক্রান্ত করেন, তাহলে ইঁদুরের বাচ্চার মতো ধরে নিয়ে আসব।’

 

 

error: দুঃখিত!