১৪ই জুলাই, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ
রবিবার | দুপুর ১২:৫৫
Search
Close this search box.
Search
Close this search box.
‘বড় কথা বলার মানুষ আছে, অভিভাবক নেই’
খবরটি শেয়ার করুন:

মুন্সিগঞ্জ, ২১ মার্চ, ২০২২, ডেস্ক রিপোর্ট (আমার বিক্রমপুর)

‘মুন্সিগঞ্জ শহরে অনেকের হম্বিতম্বি আছে। বড়,বড় কথা বলার মানুষ আছে। কিন্তু একজন অভিভাবক নেই। তাই প্রতিনিয়ত আমাদের সলিলসমাধি হবে ধলেশ্বরী-শীতলক্ষ্যায়। আমরা ভাগ্যের লিখন বলে মেনে নিবো। প্রশাসন আমাদের মৃতদেহের মূল্য বাবদ বিশ হাজার টাকা ধরিয়ে দিয়ে দায় শেষ করবে।’ এ মন্তব্য করেছেন নাগরিক সমন্বয় পরিষদ, মুন্সিগঞ্জের আহবায়ক সুজন হায়দার জনি।

আজ সোমবার (২১ মার্চ) বিকালে শীতলক্ষ্যায় লঞ্চডুবির ঘটনায় এক বিবৃতিতে তিনি এ মন্তব্য করেন।

সুজন হায়দার জনি বলেন, ‘এই নৌপথটি আজীবন ঝুঁকিপূর্ণ। নৌযানগুলোর ফিটনেস নেই। ঝুঁকিপূর্ণ নৌযানগুলো অদক্ষ চালক দিয়ে বছরের পর বছর চলছে। যাত্রী সেবার নামে একটি প্রভাবশালী সিন্ডিকেট মানুষের জীবনকে জিম্মি করে রেখেছে। নাগরিকদের ন্যায্য অধিকার নিয়ে কেউ কথা বলে না, কথা বলতেও চায় না। সবাই নিজের আখের নিয়ে ব্যাস্ত। তাই আমরা মরেছি, মরছি এবং মরবো।’

তিনি আরও বলেন, ‘এই পথে মান্ধাতার আমলের লঞ্চগুলোর পরিবর্তে আধুনিক, মানসম্পন্ন নৌযান ব্যবস্থাপনার দাবী জানাই। এছাড়া এই ধরনের ঘটনাকে দূর্ঘটনা হিসাবে আখ্যায়িত না করে পরিকল্পিত হত্যা হিসেবে বিবেচনা করার দাবী জানাই।’

উল্লেখ্য, গতকাল রোববার দুপুর ২ টার পরপর নারায়ণগঞ্জের শীতলক্ষ্যা নদীর কয়লাঘাট এলাকায় মুন্সিগঞ্জগামী লঞ্চ এম এল আশরাফ উদ্দিন দূর্ঘটনার ঘটনায় সর্বশেষ ৮ জনের মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। উদ্ধার করা হয়েছে ডুবে যাওয়া লঞ্চটিও।

এদিকে লঞ্চডুবির পরপর প্রাণে বেঁচে ফিরেছেন অনেকেই। লঞ্চটিতে প্রায় অর্ধশত যাত্রী ছিলো বলে বেঁচে ফেরা কয়েকজন জানিয়েছেন।

গতকাল লঞ্চ ডোবানো সিটি গ্রুপের মালিকানাধীন ঘাতক কার্গো রুপসী-৯ কয়েকজন নাবিক সহ আটক করা হয়েছে। অন্যদিকে এ ঘটনায় পৃথক ৩ টি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে।

সোমবার (২১ মার্চ) বিকাল ৫ টা পর্যন্ত আরও নিখোঁজ রয়েছেন অন্তত ৩ জন।

error: দুঃখিত!