২১শে জানুয়ারি, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ
শুক্রবার | দুপুর ১:৩৮
ইউপি নির্বাচন ২০২১: কেমন ভোট হলো মুন্সিগঞ্জ সদরে?
খবরটি শেয়ার করুন:

মুন্সিগঞ্জ, ২৮ নভেম্বর, ২০২১, শিহাব আহমেদ (আমার বিক্রমপুর)

তৃতীয় দফায় মুন্সিগঞ্জ সদরের ৯ টি ইউনিয়নে ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হয়েছে। ভোটগ্রহণ শেষ হওয়ার পরে দুইটি ভিন্ন ঘটনায় দুইজনের মৃত্যুর ঘটনাও ঘটেছে।

আজ রোববার (২৮ নভেম্বর) সকাল ৮টা থেকে বিকাল ৪ টা পর্যন্ত ব্যালটপেপার পদ্ধতিতে এই ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হয়।

এই নির্বাচনে ভোটকেন্দ্রে ভোটারদের উপস্থিতি ছিলো চোখে পড়ার মত। নারী ভোটারদের উপস্থিতিই ছিলো বেশি। তবে এর মধ্যেও বেশ কয়েকটি কেন্দ্রে সিল মেরে ভোট নেয়ার চেষ্টা করে প্রার্থীর সমর্থকরা। তবে এসব অভিযোগ প্রশাসন বা দায়িত্বপ্রাপ্তরা প্রত্যাখান করেছেন।

অন্যদিকে নির্বাচনী সহিংসতায় ১ জন নিহত ও অপরদিকে স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থীর স্বজনের মৃত্যু হয়েছে।

জেলা অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সুমন দেব জানান, বাংলাবাজার ইউনিয়নের ৯ নং ওয়ার্ডের বানিয়াল উত্তর ভূকৈলাশ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রের ফলাফল ঘোষণায় বিলম্ব হওয়ায় দুই নারী মেম্বার প্রার্থীর সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষে শরিয়তপুর শখিপুরের কাচিকাটা এলাকার শাকিল মোল্লা (৩০), পিতাঃ হারুন মোল্লা মারা যায়। সন্ধ্যা ৭ টা ৩০ মিনিটের দিকে মৃত অবস্থায় তার লাশ মুন্সিগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালে আনা হয়।

অন্যদিকে, রাত সাড়ে ৮ টা’র দিকে পঞ্চসারে টেলিফোন প্রতীকের প্রার্থী আলী সিদ্দিকের চাচাতো ভাই রিয়াজুল শেখ (৭০) মারা যান। নিহতের স্ত্রী বিলকিছ বেগম জানান, আরেক স্বতন্ত্র প্রার্থী গোলাম মোস্তফার সমর্থকরা দুই দফায় তাকে মারধর করে। তিনি পঞ্চসারের গোসাইবাগ এলাকার বাসিন্দা। মারধরের পরে সে মারা যায়। এসময় বাড়িঘরে হামলা চালিয়ে লুট চালায় তারা।

এ ঘটনায় জেলা অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সুমন দেব জানান, পরিবারের অভিযোগ আমলে নিয়ে পুলিশ বিষয়টি তদন্ত করে ও লাশ ময়নাতদন্ত করে মৃত্যুর সঠিক কারণ খুঁজে বের করবে।

আরও যত অভিযোগ

দুপুর দেড়টার দিকে মোল্লাকান্দি ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী মহসিনা হক কল্পনা পুনঃ নির্বাচনের দাবি জানিয়ে ভোট বর্জন করেন। এসময় তিনি প্রশাসনের বিরুদ্ধে নির্বাচনে পক্ষপাতিত্বের অভিযোগ আনেন।

মহাকালি ইউনিয়নে ৫ নং ওয়ার্ডে ২নং মহাকালি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থীকে লাঞ্চিতের অভিযোগ পাওয়া গেছে নৌকা প্রতীকের প্রার্থী শহিদুল ঢালীর সমর্থকদের বিরুদ্ধে। এসময় তারা কেন্দ্র দখল করে নৌকা প্রতীকে জাল ভোট দিয়েছেন বলেও অভিযোগ করেছেন প্রার্থী।

আধারা ইউনিয়নের ৫ নং ওয়ার্ডের ভাষানচর মিজিকান্দি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে জাল ভোট দেয়া নিয়ে দুই মেম্বার প্রার্থীর সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষ হয়েছে। এসময় ককটেল বিস্ফোরণ ঘটানো হয়।

মোল্লাকান্দি ইউনিয়নের ১ নং ওয়ার্ডের মহেশপুর এলাকায় আতঙ্ক সৃষ্টি করতে মেম্বার প্রার্থীর বাড়িতে ভোর সকালে ককটেল বিস্ফোরণ, গুলি ও হামলার ঘটনা ঘটে। এতে ১ জন আহত হন। তিনি প্রাথমিকভাবে চিকিৎসা নেন।

পঞ্চসার ইউনিয়নের ৯ নং ওয়ার্ডে নয়াগাঁও সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রের বাইরে ভোট দিতে আসার সময় মেম্বার প্রার্থীর সমর্থকদের হামলায় আজিম (২৬), পিতাঃ করিম ফকির নামের একজন আহত হয়। তিনি প্রাথমিকভাবে চিকিৎসা নেন।

এছাড়াও নির্বাচন পর্যবেক্ষণ করতে গিয়ে বেশ কয়েকজন সাংবাদিক কেন্দ্রের দায়িত্বে থাকা প্রিজাইডিং অফিসারদের কাছে বাঁধার সম্মুখীন হয়েছেন বলে জানিয়েছেন। তাদের দাবি, সঠিক আইন না জানায় তারা ভোটকেন্দ্রে প্রবেশের সময় সাংবাদিকদের সাথে বিরুপ আচরণ করেছেন।

মুন্সিগঞ্জ সদরের ৯ ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেছেন ৫৬ জন, সাধারণ সদস্য পদে ৩৬০ জন, সংরক্ষিত মহিলা সদস্য পদে ৯৯ জন। এখানে মোট ভোটার রয়েছেন ২ লাখ ২১ হাজার ১৩৭ জন। মোট ভোটকেন্দ্র ১০২ টি।

ভোটগ্রহণ শেষে বেসরকারি ফলাফলে বিজয়ী হলেন যারা-

চরকেওয়ার ইউনিয়নে নৌকা প্রতীকের প্রার্থী আফসার উদ্দিন ভূঁইয়া।

মোল্লাকান্দি ইউনিয়নে নৌকা প্রতীকের প্রার্থী রিপন হোসেন।

বাংলাবাজার ইউনিয়নে নৌকা প্রতীকের প্রার্থী সোহরাব হোসেন পীর।

আধারা ইউনিয়নে নৌকা প্রতীকের প্রার্থী মোঃ সোহরাব হোসেন।

শিলই ইউনিয়নে আনারস প্রতীকের স্বতন্ত্র প্রার্থী পারভেজ মৃধা।

পঞ্চসার ইউনিয়নে আনারস প্রতীকের স্বতন্ত্র প্রার্থী গোলাম মোস্তফা।

রামপাল ইউনিয়নে ঘোড়া প্রতীকের স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী বাচ্চু শেখ।

মহাকালী ইউনিয়নে নৌকা প্রতীকের প্রার্থী মো. শহিদুল ইসলাম ঢালী।

বজ্রযোগিনী ইউনিয়নে আনারস প্রতীকের স্বতন্ত্র প্রার্থী মোঃ তোতা মিয়া মুন্সী।

error: দুঃখিত!