৩০শে মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ
বৃহস্পতিবার | বিকাল ৩:৪৪
Search
Close this search box.
Search
Close this search box.
৮ মামলার তথ্য গোপন: আপিলেও বাদ আরিফ হালদার
খবরটি শেয়ার করুন:

মুন্সিগঞ্জ, ২৯ এপ্রিল ২০২৪, নিজস্ব প্রতিনিধি (আমার বিক্রমপুর)

আপিলেও প্রার্থিতা ফিরে পাননি মুন্সিগঞ্জের টংগিবাড়ী উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান প্রার্থী আরিফুল ইসলাম হাওলাদার। তবে একই পদে আপিল করে প্রার্থিতা ফিরে পেয়েছেন অপর এক চেয়ারম্যান প্রার্থী রাহাত খান রুবেল। এছাড়া ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী রেজাউর রহমান ডিউক মাঝি ও নুর মোহাম্মদ শেখও প্রার্থীতা ফিরে পান।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, খুন-সন্ত্রাস-চাঁদাবাজিসহ আটটি মামলা রয়েছে আরিফুল ইসলাম হালদারের বিরুদ্ধে। এসব মামলার তথ্য গোপন করে আরিফুল ইসলাম হালদার চেয়ারম্যান প্রার্থী হিসেবে মনোনয়নপত্র দাখিল করেছিলেন। মনোনয়নপত্র যাচাই-বাছাইয়ে তথ্য গোপন করায় তার প্রার্থিতা অবৈধ ঘোষণা করা হয়। পরে সে আপিল করলে শুনানি শেষে তার প্রার্থীতা অবৈধ ঘোষণা করা হয়।

মুন্সিগঞ্জের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) আশরাফুল আলম বলেন, ‘টংগিবাড়ীতে মোট ৪ জন প্রার্থীর মনোনয়নপত্র অবৈধ ঘোষণা করা হয়েছিল। এর মধ্যে ওই প্রার্থীরা আপিল করার পরে ৩ জনের মনোনয়নপত্র যাচাই-বাছাই শেষে বৈধ ঘোষণা করা হয়েছে। আরিফুল ইসলাম হালদারের অনেকগুলো মামলার বিষয়ে তথ্য গোপন করায় তার মনোনয়নপত্র আপিলেও অবৈধ ঘোষণা করা হয়েছে।’

তফসিল অনুযায়ী, টংগিবাড়ী ও লৌহজং উপজেলায় সকল প্রার্থীদের মনোনয়ন যাচাই-বাছাই হয় গত ২৩ এপ্রিল। যাচাই-বাছাইয়ে বাদ পড়াদের আপিল গ্রহণ করা হয় ২৪ থেকে ২৬ এপ্রিল। আপিল নিস্পত্তি হয় ২৭ থেকে ২৯ এপ্রিল। প্রার্থিতা প্রত্যাহারের শেষ সময় আগামীকাল ৩০ এপ্রিল। প্রতীক বরাদ্দ হবে আগামী ২ মে এবং ব্যালটপেপার পদ্ধতিতে ভোটগ্রহণ হবে আগামী ২১ মে।

error: দুঃখিত!