৩রা অক্টোবর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ
সোমবার | দুপুর ১:২২
শ্রীনগরে নাগরনন্দি খাল দখলের অভিযোগ
খবরটি শেয়ার করুন:

মুন্সিগঞ্জ, ১৩ আগষ্ট, ২০২২, শ্রীনগর প্রতিনিধি (আমার বিক্রমপুর)

মুন্সিগঞ্জের শ্রীনগর উপজেলার রাঢ়িখাল ইউনিয়নের ১নং ওয়ার্ডের নতুন বাজার এলাকার খোড়াবাড়ির সংলগ্ন দৃশ্যমান নাগরনন্দি খাল দখল করা হয়েছে।

অদৃশ্য শক্তিবলে সরকারি রেকর্ডকৃত খালটি ভরাট শেষে টিনের বেড়া দিয়ে রাখা হয়েছে।

খোড়াবাড়ির মো. আদলউদ্দিন ও মোজাদউদ্দিনের বিরুদ্ধে এ খাল দখলের অভিযোগ উঠেছে।

গুরুত্বপূর্ণ খালটিতে পানি প্রবাহে বাঁধাগ্রস্ত হয়ে এ অঞ্চলের সম্ভাবনাময় কৃষিতে বিপর্যয়ের আশঙ্কা করা হচ্ছে।

সরেজমিনে দেখা গেছে, ওই এলাকার খোড়াবাড়ির পশ্চিম পাশে ঐতিহ্যবাহী নাগরনন্দি খালের দুই পাড়সহ পুরোটাই ভরাট করা হয়েছে। এতে খালের পানি চলাচল অসম্ভব। বৃষ্টি মৌসুমে অতিবৃষ্টির ফলে খালের পানি উপচে রাস্তাঘাট ও স্থানীয়দের বাড়িঘরে জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হবে।

লক্ষ্য করা গেছে, ভরাটকারীরা এরই মধ্যে ভরাটকৃত খালের জায়গায় টিনের বেড়া দিয়ে রাখছেন।

এলাকাবাসি জানায়, খোড়াবাড়ির আদলউদ্দিন ও তার ভাই মোজাদউদ্দিন খাল ভরাট করেন। দূর থেকে ড্রাম ট্রাকে করে বালু এনে খাল ভরাট করেন তারা। খালটি একদিকে বিস্তীর্ণ আড়িয়াল বিল অপরদিকে পদ্মা নদীর সাথে সংযুক্ত। এ অঞ্চলে নাগরনন্দি খালটি পানি প্রবাহের জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ। খোড়াবাড়ির সামনে খালটি ভরাট হওয়ার ফলে খালে পানি চলাচল সম্পূর্ণরূপে বন্ধ হয়ে গেছে।

এ বিষয়ে মোজাদউদ্দিনের কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, খালের জায়গা ভরাট করা হয়নি। ব্যক্তি মালিকানা জায়গা ভরাটের দাবি করেন তিনি।

স্থানীয় ইউপি সদস্য মো. সুলতানের কাছে জানতে চাইলে তিনিও ভরাটকারীদের পক্ষে অবস্থান নেন।

তিনি জানান, ভরাটের জায়গাটি খালের অংশের মধ্যে পড়েনি। আমি তাদের কাগজপত্র দেখেছি।

রাঢ়িখাল ইউনিয়ন ভূমি উপ-সহকারি কর্মকর্তা উত্তম কুমারের কাছে এ বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন, আমি অনেক অসুস্থ আছি। এ ব্যাপারে আমি কিছু বলতে পারি না।

এ ব্যাপারে শ্রীনগর উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) মো. আবু বকর সিদ্দিক জানান, আপনাদের মাধ্যমে জানতে পেরেছি। খোঁজ নিয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিচ্ছি।

error: দুঃখিত!