২৫শে মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ
শনিবার | সকাল ৮:০০
Search
Close this search box.
Search
Close this search box.
মেঘনা নদীতে জাটকা ধরতে গিয়ে পুলিশের গুলিতে লাশ হলো মুন্সিগঞ্জের যুবক
খবরটি শেয়ার করুন:

মুন্সিগঞ্জ, ১৬ মার্চ, ২০২১, বিশেষ প্রতিনিধি (আমার বিক্রমপুর)

চাঁদপুরের মেঘনা নদীতে মাছ ধরতে গিয়ে নৌ-পুলিশের গুলিতে মুন্সিগঞ্জের আধারা ইউনিয়নের কালিরচর মাসুম (২২) নামের এক জেলে গুলিবিদ্ধ হয়ে মারা গেছেন। এ ঘটনায় পুলিশ সদস্য িসহ আরো তিনজন আহত হয়েছে বলে পুলিশ দাবি করেছে।

নৌ-পুলিশের দাবি, সোমবার (১৫ মার্চ) মধ্যরাতে মতলব উত্তর উপজেলার মোহনপুর এলাকায় জেলেদের সঙ্গে নৌ-পুলিশের সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এসময় মাসুদ গুলিবিদ্ধ হয়। এসময় আহত অবস্থায় মাসুম সহ নবীর হোসেন (১৫) ও আমির হোসেনকে (৭৫) আটক করে পুলিশ।

আহত অবস্থায় মাসুমকে মতলব উত্তর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেয়া হয়। পরে উন্নত চিকিৎসার জন্য তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়। চিকিৎসাধীন অবস্থায় মঙ্গলবার ভোর সাড়ে ৪টায় ঢাকা মেডিকেল কলেজে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মারা যান।

নিহত মাসুমের চাচাতো ভাই আলমগীর হোসেন জানান, অতিরিক্ত রক্তক্ষরণে মাসুমের মৃত্যু হয়েছে।

চাঁদপুরের নৌ-পুলিশ সুপার মো. কামরুজ্জামান জানান, সোমবার রাতে মোহনপুর নৌ-পুলিশ ফাঁড়ির পুলিশ পরিদর্শক আবুল হোসেন সরকারের নেতৃত্বে পুলিশের একটি দল টহল দিচ্ছিল। এসময় নদীতে জাটকা নিধনের দায়ে একদল জেলেকে আটক করতে গেলে তারা পুলিশের ওপর লগি বৈঠা ও ইটের টুকরো নিয়ে হামলা করে। এতে আত্মরক্ষায় পুলিশ গুলি ছোড়ে।

ঘটনায় বাম পায়ের হাঁটুর ওপর গুলিবিদ্ধ হয় মাসুদ নামের একজন জেলে। আহত অবস্থায় প্রথমে তাকে মতলব উত্তর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স এবং পরে অবস্থার অবনতি ঘটলে উন্নত চিকিৎসার জন্য তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

পুলিশ সুপার আরো জানান, অভিযানে দুজন জেলেকে আটক করা হয়। এছাড়া ২৫ কেজি জাটকা, দুই হাজার মিটার জাল ও একটি নৌকা জব্দ করা হয়।

ইলিশের অভয়াশ্রম কর্মসূচির আওতায় জাটকা রক্ষাকল্পে মার্চ-এপ্রিল দুই মাস চাঁদপুরের পদ্মা-মেঘনা নদীর ৭০ কিলোমিটার এলাকায় সব ধরনের মাছ ধরা নিষিদ্ধ করেছে সরকার।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক মুন্সিগঞ্জের বেশ কয়েকজন জেলে দাবি করেন, নৌ পুলিশকে ম্যানেজ করেই তারা নদীতে জাল ফেলেন। ট্রলার পিছু প্রতি রাতে তিন থেকে পাঁচ হাজার টাকা দিতে হয় নৌ পুলিশকে। এই কন্ট্রাক্ট থেকে বাহিরে থাকলেই বিপদে পড়তে হয় বলে জানান তারা।

error: দুঃখিত!