১৮ই জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ
মঙ্গলবার | রাত ৪:৪৮
Search
Close this search box.
Search
Close this search box.
মুন্সিগঞ্জ শহরে পূর্ব বিরোধের জেরে যুবককে মারধরের অভিযোগ
খবরটি শেয়ার করুন:

মুন্সিগঞ্জ, ১১ মে ২০২৩, সদর প্রতিনিধি (আমার বিক্রমপুর)

মুন্সিগঞ্জ শহরে পূর্ব বিরোধকে কেন্দ্র করে যুবককে মারধরের অভিযোগ উঠেছে জেলা ছাত্রলীগের সদস্য ও হরগঙ্গা কলেজ ছাত্রলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক রায়হান রাফি, তার ভাই মোস্তফা আহমেদ হিমেল, মিলন ওরফে চাক্কু মিলন ও আরিফের বিরুদ্ধে। এ নিয়ে মুন্সিগঞ্জ সদর থানায় অভিযোগ দায়ের করেছেন ভুক্তভোগী যুবক। তবে অভিযোগ অস্বীকার করেছেন অভিযুক্তরা।

মুন্সিগঞ্জ সদর থানার ওসি মো. তারিকুজ্জামান অভিযোগের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, পূর্ব বিরোধের জের ধরে বৃহস্পতিবার বিকাল পৌনে ৫টার দিকে মুন্সিগঞ্জ শহরের দক্ষিণ কোর্টগাঁও সংলগ্ন লিচুতলা এলাকা দিয়ে চুল কাটতে যাওয়ার সময় মাঠপাড়া এলাকার মো. মহিউদ্দিনের ছেলে নিরবকে (২৫) লোহার রড ও স্টিলের পাইপ দিয়ে পিটিয়ে আহত করেন ওই এলাকার মো. ফরহাদের পুত্র রায়হান রাফি (২৮), তার বড় ভাই হিমেল (৩২), আক্কাছ মিয়ার পুত্র মিলন (৩৭) ওরফে চাক্কু মিলন ও মো. জীবনের পুত্র আরিফ (৩২)।

ভুক্তভোগী নিরব অভিযোগ করে বলেন, এর আগে এই চক্রটি আমার উপর আরও দুইবার হামলা করে। প্রতিবারই থানায় অভিযোগ করেও কোন প্রতিকার পাইনি।

এসব অভিযোগের বিষয়ে অভিযুক্তদের পক্ষের মোস্তফা আহমেদ হিমেল বলেন, আমাদের সাথে পূর্বের সম্পর্ক রয়েছে। বৃহস্পতিবার বিকালে নিরব এলাকায় এসে আমাদের বিরুদ্ধে বিভিন্ন কুৎসা রটাচ্ছিলো। এসময় নিরবের মামা সাবু কালাম তাকে শাসন করে একটা থাপ্পর মারে। আমরা নিরবকে কোন মারধর করিনি। আমাদের বিরুদ্ধে সে থানায় যে অভিযোগ করেছে তা সব মিথ্যা।

এদিকে মোস্তফা আহমেদ হিমেলের দাবি অস্বীকার করে নিরব বলেন, আমাকে হিমেল ও তার সহযোগিরা পিস্তল বের করে মারার হুমকি দিচ্ছিলো। এমন সময় আমার মামা এসে আমাকে সরিয়ে নিতে চাইলে ওরা আমার মাথায় লোহার রড ও স্টিলের পাইপ দিয়ে আঘাত করে, এলোপাথাড়ি কিল-ঘুষি দিয়ে আহত করে। পরে মামা আমাকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে চিকিৎসা দেন।

ওসি বলেন, এ বিষয়ে থানায় অভিযোগ হয়েছে। তদন্ত সাপেক্ষে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

error: দুঃখিত!