২৫শে জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ
মঙ্গলবার | রাত ৯:৫৯
Search
Close this search box.
Search
Close this search box.
মুন্সিগঞ্জে ১১ বছরের কিশোরীর রহস্যজনক মৃত্যু!
খবরটি শেয়ার করুন:

মুন্সিগঞ্জ, ৮ আগষ্ট, ২০২০, সিরাজদিখান প্রতিনিধি (আমার বিক্রমপুর)

মুন্সিগঞ্জের সিরাজদিখানে সাইখা আক্তার (১১) নামে এক কিশোরীর রহস্যজনক মৃত্যু হয়েছে।

গত বৃহস্পতিবার দিবাগত রাত ৩ টার দিকে উপজেলার রশুনিয়া ইউনিয়নের সন্তোষপাড়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। হত্যা না আত্নহত্যা এ নিয়ে রহস্যের দানা বাধতে শুরু করেছে। মৃত সাইখা  ইছাপুরা গ্রামের মো. হালিম শেখের মেয়ে।

জানা যায়, বৃহস্পতিবার রাতে সাইখা আক্তার তার মা আলো বেগমের কাছে তার শারিরীক অস্বস্তির কথা জানায়। পরে ওইদিন রাতে প্রথমে তাকে সোহনেয়ারা হাসপাতালে নেওয়া হলে সমস্যা ধরতে না পেরে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে পাঠানো হয়। উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে ঢাকা মিডফোর্ট হাসপাতালে রেফার্ড করেন। সাইখা আক্তারকে ঢাকা হাসপাতালে নেওয়া হলে সেখানকার কর্তব্যরত চিকিসক তাকে মৃত ঘোষনা করেন।

পরে এ বিষয়ে কোতয়ালী থানায় একটি অপমৃত্যু মামলা দায়ের করা হলে লাশ ময়না তদন্ত শেষে সিরাজদিখানে আনা হয় এবং গতকাল শুক্রবার রাত ৯টায় হিরনের খিলগাও কবরস্থানে জানা শেষে তার দাফন সম্পন্ন করা হয়।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, বৃহস্পতিবার রাতে সাইখা আক্তারকে গুরুতর অসুস্থ্য অবস্থায় হাসপাতালে নেওয়ার সময় তার হাতে একটি সিরাপের বোতল ধরে রাখতে দেখা গেছে। অপরদিকে সাইখা আক্তারের মা আলো বেগম বিষয়টি অস্বীকার করেন। এতে করে স্থানীয় লোকজনের মনে সন্দেহ আরো বাড়তে থাকে।

অপরদিকে সাইখা আক্তারের মা তার প্রথম স্বামীকে তালাক দিয়ে দ্বিতীয় স্বামী আল আমিনের সাথে হোসনেয়ারা জেনারেল হাসপাতালের পিছনে একটি ঘর ভাড়া নিয়ে বসবাস করে আসছিলেন। অনেকের ধারণা সাইখা আক্তারে মা তার প্রথম স্বামীর সাথে তালাক হবার কারণে ক্ষোভের বসে মেয়েকে হত্যা করেছেন।

অপরদিকে সাইখা আক্তারের মা আলো বেগম তার মেয়ের মৃত্যুর বিষয় নিয়ে মুখ খুলতে রাজি নন।

সিরাজদিখান থানার ওসি মো. ফরিদ উদ্দিন জানান, আমাদের কাছে কেউ এ বিষয়ে অভিযোগ করেনি। লাশ ময়না তদন্তের পর যদি দাফন করা হয় তাতে কোন সমস্যা নেই। যদি মৃতার পরিবারের কেউ আমাদের কাছে লিখিত অভিযোগ করে তাহলে প্রয়োজনীয় আইনানুগ ব্যাবস্থা গ্রহন করা হবে। 

error: দুঃখিত!