১৫ই এপ্রিল, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ
সোমবার | দুপুর ২:৩১
Search
Close this search box.
Search
Close this search box.
মুন্সিগঞ্জে হাসপাতালে পানি ভেবে অ্যাসিড পান, মৃত্যুশয্যায় রোগী
খবরটি শেয়ার করুন:

মুন্সিগঞ্জ, ১৫ মার্চ, ২০২৪, নিজস্ব প্রতিনিধি (আমার বিক্রমপুর)

মুন্সিগঞ্জের লৌহজংয়ে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভুল করে পানি ভেবে অ্যাসিড খাওয়ানো হয়েছে এক রোগীকে।ভুক্তভোগী নমিতা রাণী দাস (৩৮) বর্তমানে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের আইসিইউতে ভর্তি রয়েছেন। তার অবস্থা শঙ্কটাপন্ন বলে জানিয়েছে পরিবার।

গতকাল বৃহস্পতিবার দুপুরে উপজেলার হাটভোগদিয়া এলাকায় লৌহজং উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে এ ঘটনা ঘটে।নমিতা রাণী দাস উপজেলার কনকসার ইউনিয়নের ৮নং ওয়ার্ডের নিমাই সরকারের স্ত্রী।

ভুক্তভোগী ওই রোগীর বড় ভাই বলরাম চন্দ্র দাস অভিযোগ করে জানান, আমার বোনের প্রস্রাব ইনফেকশন হওয়ায় গত ২ মার্চ নারায়ণগঞ্জের একটি হাসপাতালে চিকিৎসা করানো হয়। তখন অপারেশন করে প্রস্রাবের জন্য ক্যাথেটার লাগানো হয়। বৃহস্পতিবার দুপুরে তাকে লৌহজং উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে জরুরী বিভাগ থেকে ৩য় তলায় নিয়ে ক্যাথেটার খোলা হয়।

পরে আমার বোন অসুস্থবোধ করলে নার্স পানি খাওয়ানোর জন্য বোতল দেখিয়ে দেন। নার্সের দেখিয়ে দেওয়া বোতল থেকে পানি পান করানোর পরেই আমার বোনের গলা ও মুখ পুড়ে গেছে। পরে আমরা জানতে পারি নার্স যে বোতল দেখিয়ে দিয়েছে সেখানে পানি ছিল না। ওই বোতলে অ্যাসিড ছিল। বর্তমানে সে শঙ্কটাপন্ন অবস্থায় ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের আইসিইউতে ভর্তি রয়েছেন।

লৌহজং উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. নাজমুস সালেহীন বলেন, বিষয়টি শুনেছি। তবে ওই নারী আমার হাসপাতালে ভর্তি ছিলেন না এবং আমার হাসপাতালে কোনো ডাক্তারও ওই নারীর চিকিৎসা করে নাই। শুধু একটা নার্স দিয়ে তিনি চিকিৎসা করিয়ে এ অবস্থার সৃষ্টি হয়েছে বলে আমি জানতে পেরেছি। এ বিষয়ে তদন্ত কমিটি গঠন করে যথাযথ আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করবো।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. জাকির হোসেন জানান, আমার কাছে অভিযোগ দায়ের করেছে ভুক্তভোগী নারী। আমি হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের সঙ্গে কথা বলেছি। ঘটনার তদন্ত করে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

error: দুঃখিত!