১৫ই জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ
শনিবার | দুপুর ২:৫৬
Search
Close this search box.
Search
Close this search box.
মুন্সিগঞ্জে হামলার প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন
খবরটি শেয়ার করুন:

মুন্সিগঞ্জ, ১৯ ডিসেম্বর, ২০২২, নিজস্ব প্রতিনিধি (আমার বিক্রমপুর)

মুন্সিগঞ্জের গজারিয়া উপজেলার হোসেন্দী ইউনিয়নে আধিপত্য বিস্তার নিয়ে হামলা ও ভাঙচুরের প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছে।

আজ সোমবার দুপুরে হোসেন্দি ইউনিয়নের ভবানীপুর এলাকায় হোসেন্দি ইকোনমিক জোনের সামনে নেয়ামত শুকরিয়া শপিং কমপ্লেক্সের সামনে হোসেন্দি ইউনিয়নের সর্বস্তরের জনগণের ব্যানারে এই কর্মসূচি পালিত হয়। পরে সড়কে এক সংক্ষিপ্ত মানববন্ধন পালন করে আয়োজকরা। এসময় স্থানীয় শতাধিক নারী-পুরুষ উপস্থিত ছিলেন।

সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে গজারিয়া উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাবেক সভাপতি মোজাম্মেল হোসেন অভিযোগ করে বলেন, গত ২ নভেম্বর হোসেন্দী ইউপি উপ নির্বাচনে পরাজয়ের জের ধরে স্বতন্ত্র প্রার্থী মাহাবুব হোসেন নৌকা প্রতীকের বিজয়ী প্রার্থী মনিরুল হক মিঠুর সমর্থকদের উপর প্রতিশোধপরায়ণ হয়ে উঠেন। পরপর কয়েকবার তারা আশ্রাবদী গ্রামে ইউপি চেয়ারম্যান মিঠুর কর্মী-সমর্থক যারা নির্বাচনে সক্রিয় ভূমিকা রেখেছিলো তাদের উপর হামলা করে। গতকাল রোববার (১৮ ডিসেম্বর) পরাজীত প্রার্থী মাহাবুব সমর্থক শাহপরাণ, জাহাঙ্গীরসহ ৬৪ জন এবং আরও অজ্ঞাত দুই শতাধিক সশস্ত্র ব্যক্তি পিস্তল, বন্দুক, টেটা, বল্লম চাপাতিসহ অন্যান্য অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে হামলা করে ও নির্বিচারে ঘরবাড়ি ভাঙচুর করে লুটপাট চালায়। প্রায় ৩ ঘন্টাব্যাপী তান্ডব ও লুটপাট অব্যাহত থাকলেও পুলিশ প্রশাসন কোন পদক্ষেপ গ্রহণ করেনি। পুরো সময়টিতে গজারিয়া থানার ওসি মোল্লা সোহেব আলীর নেতৃত্বে পুলিশের একটি দল আশ্রাবদী গ্রামের প্রবেশমুখ হোসেন্দি ব্রীজে অবস্থান করে। তার এমন আচরণে আমাদের কাছে মনে হয়েছে তিনি সন্ত্রাসীদের নির্বিঘ্নে ধ্বংসযজ্ঞ চালানোর সুযোগ করে দিচ্ছে। আমরা তার এরকম রহস্যজনক ভূমিকার তীব্র নিন্দা জানাই এবং নিস্ক্রিয়তার কারণ উদঘাটনের জোর দাবি জানাই।

এসব অভিযোগের বিষয় জানতে চাইলে পরাজীত চেয়ারম্যান প্রার্থী মাহাবুব হোসেন বলেন, আমি ঢাকা যাওয়ার জন্য গতকাল রওনা হই। তখন মনিরুল হক মিঠুর ভাই মোমিন, ভাতিজা তুরিনের নেতৃত্বে আমার উপর হামলা চালানো হয়। এসময় ইট দিয়ে আমার গাড়ি ভাঙে তারা। তখন আমি জীবনরক্ষার্থে পুলিশকে ফোন দেই। এর মধ্যেই তারা আমাকে ও আমার সাথে থাকা ড্রাইভারসহ দুইজনকে মারধর করে। বাড়িঘর ভাঙচুরের যে অভিযোগ তারা আমার কর্মী-সমর্থকদের বিরুদ্ধে করেছে তা সত্য নয়। আমার উপর হামলার ঘটনায় গতকাল রোববার রাতে আমার স্ত্রী ফাতেমা বাদী হয়ে গজারিয়া থানায় অভিযোগ দায়ের করেছেন।

গজারিয়া থানার ওসি মোল্লা সোহেব আলী বলেন, এ ব্যাপারে পুলিশ সতর্ক অবস্থানে রয়েছে। সংবাদ সম্মেলনে যেসব অভিযোগ করা হয়েছে তা অসত্য। পুলিশের নিস্ক্রিয়তার দাবিও সঠিক নয়। ভুক্তভোগীরা থানায় অভিযোগ করলে তদন্তসাপেক্ষে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

উল্লেখ্য, মুন্সিগঞ্জের গজারিয়ায় হোসেন্দী ইউনিয়নে ইউপি চেয়ারম্যান মনিরুল হক মিঠু ও পরাজীত প্রার্থী মাহাবুব হোসেনের সমর্থকদের মধ্যে আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে গতকাল রোববার দফায় দফায় হামলা-ভাঙচুর ও লুটপাটের অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় পরাজিত চেয়ারম্যান প্রার্থী মাহাবুব হোসেনসহ অন্তত ১০ জন আহত হয়েছেন বলে জানা যায়। এসময় ইউপি চেয়ারম্যান মিঠুর সমর্থকদের অন্তত ১৫ টি ঘরবাড়ি ভাঙচুর করে প্রতিপক্ষ।

সংবাদ সম্মেলনে আরও উপস্থিত ছিলেন, ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ শাহাবুদ্দিন, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মমিনুল হক টিটু, হোসেন্দি ইউপি সদস্য তোতা মিয়া বেপারি প্রমুখ।

error: দুঃখিত!