২১শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ
মঙ্গলবার | রাত ২:৩২
মুন্সিগঞ্জে লাগামহীন পেঁয়াজের দাম, নিম্ন,মধ্যবিত্ত পরিবারে হাহাকার!
খবরটি শেয়ার করুন:

মুন্সিগঞ্জ ১৫ নভেম্বর, ২০১৯, সদর প্রতিনিধি (আমার বিক্রমপুর)

মুন্সিগঞ্জে লাগামহীন হয়ে উঠেছে পেঁয়াজের দাম। মুন্সিগঞ্জ বাজার, মুন্সীরহাট বাজার, মুক্তারপুর ফেরিঘাট বাজার, সিপাহীপাড়া বাজার, ধলাগাও বাজার ও রিকাবী বাজার বাজার ঘুড়ে দেখা গেছে এই চিত্র। সব বাজারেই পেঁয়াজ বিক্রি হচ্ছে ২০০-২৪০ টাকা পর্যন্ত।

আজ (শুক্রবার, ১৫ নভেম্বর) সকালে মুন্সিরহাট বাজারে গিয়ে দেখা যায়, ভালো মানের দেশি পেঁয়াজ বিক্রি হচ্ছে ১ কেজি ২০০ টাকা দরে। অপেক্ষাকৃত খারাপ মানের ছোট পেঁয়াজ বিক্রি হচ্ছে ১৯০ টাকা দরে।

মুন্সিগঞ্জের একাধিক ক্রেতারা বলছেন, ‘দেশের বিভিন্ন জেলায় এরই মধ্যে মুড়ি পেঁয়াজ (পাতাসহ পেঁয়াজ) উঠতে শুরু করেছে। বিভিন্ন দেশ থেকে প্রচুর পরিমাণে পেঁয়াজ আমদানিও করা হচ্ছে। এ অবস্থায় বাজারে পেঁয়াজের দাম কমার কথা থাকলেও উল্টো সারা দেশেই বেড়েছে এ নিত্যপণ্যের দাম। সরকারের নিয়মিত মনিটরিং না থাকায় ব্যবসায়ীরা ইচ্ছামতো পেঁয়াজের দাম বাড়াচ্ছেন।’

পেঁয়াজের এমন লাগামহীন দামে ক্রেতাদের মাঝে ক্ষোভ দেখা গেছে।

জুলাই মাসের শুরুতে প্রতি কেজি পেঁয়াজের দাম ছিল ৩০ থেকে ৩৫ টাকা। কিন্তু ১৪ সেপ্টেম্বর ভারত তাদের বাজার সুরক্ষায় পেঁয়াজের রপ্তানি মূল্য বাড়িয়ে দিলে দিনের মধ্যেই দাম পৌঁছে কেজিপ্রতি ৮০ টাকায়। পরে ওই মাসের শেষ দিকে (২৯ সেপ্টেম্বর) ভারত বাংলাদেশে তাদের পেঁয়াজ রপ্তানি বন্ধ করে দেয়। রপ্তানি বন্ধ হওয়ায় দেশের বাজারে অস্থিরতা আরও বাড়ে। বিকল্প হিসেবে মিয়ানমার, মিশরসহ বিভিন্ন দেশ থেকে পেঁয়াজ আমদানির উদ্যোগ নেওয়া হয়। বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের সঙ্গে একাধিক বৈঠকে ব্যবসায়ীরাও দাম সহনীয় রাখার প্রতিশ্রুতি দেন। খোলাবাজারে পেঁয়াজ বিক্রির উদ্যোগও নেয় ট্রেডিং করপোরেশন অব বাংলাদেশ (টিসিবি)। কিন্তু কোনো কিছুতেই থামানো যায়নি পেঁয়াজের দামের অপ্রতিরোধ্য ঊর্ধ্বমুখী গতি। 

পেঁয়াজের এ দাম বৃদ্ধির ফলে সবচেয়ে বেশি বিপাকে পড়ছেন নিম্নবিত্ত মানুষ। আর মধ্যবিত্তদের মধ্যে শুরু হয়েছে হাহাকার।

মুক্তারপুর ফেরিঘাট বাজারের মায়ের দোয়া স্টোরের মালিক শিশির হাসান জানান, গত কয়েক দিন ধরে তিনি দোকানে পেঁয়াজ বিক্রি করছেন না। কারণ জানতে চাইলে তিনি বলেন, প্রতিদিনই ১০ থেকে ২০ টাকা করে পেঁয়াজের দাম বাড়ছে। এ কারণে ক্রেতাদের সঙ্গে দোকানিদের প্রায় সময়ই কথা কাটাকাটি হয়।

error: দুঃখিত!