২৩শে জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ
রবিবার | সকাল ৭:০৯
Search
Close this search box.
Search
Close this search box.
মুন্সিগঞ্জে যুবদল নেতাকে গুলি, ইউপি চেয়ারম্যানের দুই ভাইয়ের বিরুদ্ধে মামলা
খবরটি শেয়ার করুন:

মুন্সিগঞ্জ, ২৬ জানুয়ারি, ২০২৩, নিজস্ব প্রতিনিধি (আমার বিক্রমপুর)

মুন্সিগঞ্জ সদরের মোল্লাকান্দি ইউনিয়ন যুবদলের সভাপতি ও পুলিশের উপর হামলার মামলার আসামি জিয়া সরদারকে (৪৫) মাইক্রোবাসে তুলে নিয়ে কুপিয়ে এবং গুলি করে আহত করার ঘটনায় মোল্লাকান্দি ইউপি চেয়ারম্যান রিপন হোসেন পাটোয়ারির বড় ভাই লিটন পাটোয়ারিকে প্রধান অভিযুক্ত ও ছোট ভাই ইউনিয়ন যুবলীগের সভাপতি শিপন পাটোয়ারিকে ২নং আসামি করে মামলা দায়ের হয়েছে।

বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে ৮টা’র দিকে গুলিবিদ্ধ জিয়ার স্ত্রী সুমি বেগম বাদী হয়ে মুন্সিগঞ্জ সদর থানায় এই মামলা দায়ের করেন। এর আগে মামলায় ইউপি চেয়ারম্যান রিপন পাটোয়ারিকেও আসামি করা হয়েছিলো। তবে পুলিশ সেই মামলা গ্রহণ না করায় তার নাম বাদ দেয়া হয়েছে বলে সুমি বেগম দাবি করেছেন।

মুন্সিগঞ্জ সদর থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) আনছার উজ্জামান মামলার বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, মামলায় ইউপি চেয়ারম্যান রিপন হোসেনের দুই ভাইসহ ১৫জনকে আসামি করা হয়েছে। তবে আসামিদের কেউ গ্রেপ্তার নেই। তাদের গ্রেপ্তারের চেষ্টা করা হচ্ছে।

আর মামলার বাদী সুমি বেগম অভিযোগ করে বলেছেন, আসামিরা প্রকাশ্যে ঘুরে বেড়ালেও পুলিশ তাদের ধরছে না।

মামলার বিষয়ে মোল্লাকান্দি ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ও সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক রিপন হোসেন পাটোয়ারি বলেন, ইউপি নির্বাচনে বিরোধের জের ধরে পরাজিত প্রার্থী মহসিনা হক কল্পনার যোগসাজশে আমার ভাই ও নিরীহ লোকজনদেরকে রাজনৈতিকভাবে হেয় করার জন্য মিথ্যা মামলা দেয়া হয়েছে।

উল্লেখ্য, গেল মঙ্গলবার (২৪ জানুয়ারি) দুপুর ২টার দিকে সদরের মোল্লাকান্দি ইউনিয়নের আমঘাটা গ্রামে ইউনিয়ন যুবদলের সভাপতি, নোয়াদ্দা গ্রামের জেদ্দাল সরকারের ছেলে জিয়া সরদারকে (৪৫) মাইক্রোবাসে তুলে নিয়ে কুপিয়ে এবং গুলি করে আহত করার অভিযোগ পাওয়া যায় ইউনিয়ন যুবলীগের সভাপতি শিপন পাটোয়ারি ও তার সহযোগীদের বিরুদ্ধে। গুলিবিদ্ধ গুরুতর আহত জিয়া ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

error: দুঃখিত!