১৫ই এপ্রিল, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ
সোমবার | বিকাল ৩:৩০
Search
Close this search box.
Search
Close this search box.
মুন্সিগঞ্জে শৌচাগারের পাশে পড়ে ছিল মেস পরিচালিকার মুখ বাঁধা মরদেহ
খবরটি শেয়ার করুন:

মুন্সিগঞ্জ, ১ মার্চ, ২০২৪, নিজস্ব প্রতিনিধি (আমার বিক্রমপুর)

মুন্সিগঞ্জের গজারিয়ায় বসতঘরের অদূরে শৌচাগারের সামনে থেকে গামছা দিয়ে মুখ বাঁধা অবস্থায় এক মেস পরিচালিকার মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। পরিবারের অভিযোগ, মেসে খাওয়ার পাওনা টাকা নিয়ে বাকবিতণ্ডার জেরে এই ঘটনা ঘটেছে।

আজ শুক্রবার সকালে উপজেলার হোসেন্দী ইউনিয়নের ভবানীপুর এলাকায় থেকে ওই মরদেহটি উদ্ধার করা হয়। তার শরীরের বিভিন্ন অংশে আঘাতের চিহ্ন রয়েছে বলে জানিয়েছে পুলিশ।

মৃত মাবিয়া খাতুন (৫৫) খুলনা জেলার তেরোখাদা উপজেলার ছাগলাদহ ইউনিয়নের হিন্দু কুশলা গ্রামের আব্দুল গাফফার মোল্লার স্ত্রী।

মৃত মাবিয়া খাতুনের স্বামী আব্দুল গাফফার মোল্লা জানান, ২০১৩ সাল থেকে ভবানীপুর এলাকার  আবুল কাশেমের বাড়িতে ভাড়ায় থেকে একটি মেস পরিচালনা করতেন মাবিয়া খাতুন। স্থানীয় বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে কর্মরত ৩০-৪০ জন শ্রমিক তার এখানে মাসিক টাকার চুক্তিতে খাবার খেতেন।তবে খাবার খেয়ে দীর্ঘদিন ধরে টাকা না দেওয়ায় বিল্লাল নামে এক শ্রমিকের সাথে গতকাল বৃহস্পতিবার রাত ৯ টার দিকে বাকবিতণ্ডা হয় মাবিয়া খাতুনের। এসময় বিল্লাল টাকা দিবেন না জানিয়ে মাবিয়া খাতুনকে উল্টো দেখে নেওয়ার হুমকি দেন। পরে তারা ঘুমিয়ে পড়েন। সকালে বসতঘরের অদূরে গামছা দিয়ে মুখ বাঁধা অবস্থায় শৌচাগারের পেছনে মাবিয়ার মরদেহ পাওয়া যায়। বিষয়টিকে পরিকল্পিত হত্যাকাণ্ড দাবি করে এ ঘটনায় দোষীদের বিচার দাবি করেন তিনি।

গজারিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) রাজিব খান বলেন, মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য মুন্সিগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালে মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে। প্রাথমিকভাবে ঘটনাটি হত্যাকাণ্ড বলে মনে হয়েছে। তবে, ময়নাতদন্তের পর বিস্তারিত জানা যাবে।

error: দুঃখিত!