৬ই মে, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ
বৃহস্পতিবার | রাত ৩:৪১
মুন্সিগঞ্জে পূর্ব শত্রুতার জেরে দুই নারী সহ ৭জনকে পিটিয়ে জখম

খবরটি শেয়ার করুন:

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on whatsapp
Share on email

মুন্সিগঞ্জ, ২০ এপ্রিল, ২০২১, বিশেষ প্রতিনিধি (আমার বিক্রমপুর)

মুন্সিগঞ্জের টংগিবাড়ীতে পূর্বশত্রুতার জেরে প্রতিপক্ষ লোকজনের হামলায় দুই নারী সহ ৭জনকে আহত করার অভিযোগ পাওয়া গেছে।

সোমবার (১৯এপ্রিল) রাত ৮টার দিকে উপজেলার কাউচাইল এলাকায় এ হামলার ঘটনা ঘটে।

আহতরা হলেন, কাইচাইল এলাকার শাওন শেখ (১৮), মনির হোসেন শেখ (৩৯), শিপন হালদার (২৫), হাসান সরদার (৩০), আমির হোসেন (৩২), পান্না আক্তার (২৮), রূপা আক্তার (২৮)।

আহতদের উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে গুরুতর অবস্থায় শাওনকে রাতেই ঢাকা মেডিকেলে প্রেরণ করা হয়। অপর ৬জনের মধ্যে শিপন ও হাসান টংগিবাড়ী স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি রয়েছে।

এ ঘটনায় ভুক্তভোগী মনির বাদী হয়ে প্রতিপক্ষের ৬জন, রুবেল হালদার (৩৩), মোঃ বাবু হাওলাদার (৩০), মোঃ রাকিব হালদার (২৮), শাকিব হাওলাদার (২৬), আমিন হাওলাদার (৫৬), দিনা হাওলাদারের (৩৭) বিরুদ্ধে টংগিবাড়ী থানায় অভিযোগ দায়ের করেছে।

এজহার ও প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা যায়, জায়গা সম্পত্তি নিয়ে কাইচাইল এলাকার মনির হোসেন শেখ গংদের সাথে প্রতিবেশি আমিন হাওলাদার গং দের পূর্ব বিরোধ চলে আসছিলো। বিরোধ কে কেন্দ্র করে সোমবার রাতে মনিরদের বাড়িতে এসে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করে আমিন হালাদার ও তার পুত্র রুবেল, বাবু, রাকিব, শাকিব ও ভাতিজা দিনা হাওলাদার।

এবিষয়ে প্রতিবাদ করলে মনিরের ভাতিজা শাওনকে পিটিয়ে গুরুতর আহত করে তারা। এসময় শাওনকে বাঁচাতে মনির হোসেন, তার ভাগ্নে হাসান সরদার, প্রতিবেশি আমির হোসেন, শিপন, আমির হোসেনের স্ত্রী পান্না বেগম এগিয়ে আসলে তাদেকে হকিস্টিক, লোহার রড, দা দিয়ে পিটিয়ে ও কুঁপিয়ে আহত করে।

মনির হোসেন জানান, দীর্ঘদিন যাবত প্রতিপক্ষের লোকজন আমাদের জায়গা দখলে নেওয়ার জন্য নানা ভাবে হুমকি দিয়ে আসছিলো। এ নিয়ে তাদের সাথে পূর্ববিরোধ চলছিলো। এর জের ধরেই হত্যার উদ্দেশ্যে পরিকল্পিত হামলা চালানো হয়েছে। থানায় অভিযোগ করেছি, আমরা এর বিচার চাই।

এ বিষয়ে প্রতিপক্ষের আমিন হালদারের সাথে মুঠোফোনে একাধিকবার যোগাযোগ করা হলেও তাকে পাওয়া যায়নি।

এব্যাপারে টংগিবাড়ী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) হারুন অর রশিদ বলেন, অভিযোগ পেয়েছি। তদন্ত সাপেক্ষে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

error: দুঃখিত!