২২শে অক্টোবর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ
শুক্রবার | সকাল ১১:১৬
মুন্সিগঞ্জে থানায় প্রবাসীর অন্তঃসত্ত্বা স্ত্রী ‘নিখোঁজ’ ডায়েরি, মাদ্রাসা শিক্ষার্থীকে খুঁজছে পুলিশ
খবরটি শেয়ার করুন:

মুন্সিগঞ্জ, ৬ অক্টোবর, ২০২১, বিশেষ প্রতিনিধি (আমার বিক্রমপুর)

মোবাইল ফোনে পরিচয়। এক পর্যায়ে এ পরিচয় রূপ নেয় প্রেমে। দীর্ঘদিন ধরে চলছিল মন দেয়া-নেয়া। পরে ঘর বাঁধার রঙিন স্বপ্নে বিভোর হয়ে প্রেমিকের হাত ধরে অজানার উদ্দেশ্যে পাড়ি দেন দুবাই প্রবাসী চার মাসের অন্তঃসত্ত্বা প্রেমিকা।

কিন্তু সে স্বপ্নে বাদ সাধে বেরসিক পুলিশ। পালিয়ে যাওয়ার ১৪ দিনের মাথায় ময়মনসিংহ জেলাধীন গৌরীপুর উপজেলায় থেকে প্রেমিকা কে উদ্ধার নিয়ে আসা হয় গজারিয়া থানায়। ঘটনাটি উপজেলার বালুয়াকান্দি ইউনিয়নের আব্দুল্লাহপুর গ্রামে।

সূত্র জানায়, গেল ২০ সেপ্টেম্বর একই ইউনিয়নের বালুয়াকান্দি গ্রামের দুবাই প্রবাসীর চার মাসের অন্তঃসত্ত্বা স্ত্রী তার প্রতিবেশী প্রেমিক মাদ্রাসা শিক্ষার্থী রায়হান মিয়ার হাত ধরে ঘর ছাড়েন।

মাদ্রাসার শিক্ষার্থী রায়হান মিয়া (১৭) বালুয়াকান্দি ইউনিয়নের আব্দুল্লাহপুর গ্রামের আবু সিদ্দিকের ছেলে।

এ ঘটনায় গজারিয়া থানায় স্ত্রী ‘নিখোঁজ’ ডায়েরি করেন দুবাই প্রবাসী। জিডি’র তদন্তে নেমে থানা পুলিশের এসআই অলিআর রহমান গেল ৪ অক্টোবর (সোমবার) দিনগত রাতে নিখোঁজের ১৪ দিন পর ময়মনসিংহের গৌরীপুর উপজেলা থেকে প্রেমিকা’কে উদ্ধার করে। তবে প্রেমিক রায়হানকে উদ্ধার করতে পারেনি পুলিশ।

ভুক্তভোগী দুবাই প্রবাসী স্থানীয় গণমাধ্যম কর্মীদের জানায়, গেল মে মাসে দুবাই থেকে তিনি দেশে ফেরেন। সেই মাসেই তিনি পারিবারিক ভাবে একই ইউনিয়নের আব্দুল্লাহপুর গ্রামের জাকির হোসেনের মাদ্রাসা পড়ুয়া মেয়ের সাথে তার বিয়ে হয়। বিয়ের পর থেকে তাদের সম্পর্ক স্বাভাবিক ছিল। কিন্তু গত প্রায় দেড় মাস ধরে তিনি তার স্ত্রীর মাঝে অস্বাভাবিক আচরণ লক্ষ্য করেন। অযথা তার সাথে খারাপ ব্যবহার করা এবং শ্বশুরবাড়ি ছেড়ে বাবার বাড়িতে থাকার বাহানা খুঁজতে থাকে তার স্ত্রী।

তিনি জানান, স্ত্রী অন্তঃসত্ত্বা থাকায় মানবিক দিক বিবেচনা করে গত কুরবানী ঈদের পর তিনি তার স্ত্রী’কে শ্বশুর বাড়িতে থাকার অনুমতি দেন। শ্বশুর বাড়িতে যাবার পর তার সাথে আগের চাইতে বেশি খারাপ আচরণ করতে থাকে তার স্ত্রী। বিভিন্ন সময় তাকে ফোন করলে ওয়েটিংয়ে পাওয়া যেত এ ব্যাপারে তাকে জিজ্ঞেস করলে তার সাথে খারাপ ব্যবহার করতো তার স্ত্রী। এর মধ্যে গত ২০ সেপ্টেম্বর হঠাৎ করে তার স্ত্রী শ্বশুরবাড়ি থেকে নিখোঁজ হয়ে যায়। পরবর্তীতে তিনি এবং তার শ্বশুর পৃথকভাবে গজারিয়া থানায় দুটি ডাইরী দায়ের করেন। থানায় অভিযোগের খবর শুনে অজ্ঞাত একটি মুঠোফোন থেকে তার মোবাইলে কল করে তার স্ত্রী। এসময় তার স্ত্রী তাকে জানায় প্রতিবেশী আবু সিদ্দিকের মাদ্রাসা পড়ুয়া ছেলে রায়হান (১৭)’এর সাথে সে চলে এসেছে। তাদের মধ্যে দীর্ঘদিনের প্রেমের সম্পর্ক ছিল এবং সম্প্রতি তারা বিয়েও করেছে।

ভুক্তভোগী ঐ প্রবাসী বলছেন, ইতিমধ্যে তিনি আইনজীবীর সাথে কথা বলেছে, আগামীকাল সকালে মুন্সিগঞ্জ কোর্টে মামলা দায়ের করবে বলে জানান তিনি। একজন স্বামী বর্তমান থাকা অবস্থায় ডিভোর্স না দিয়ে আরেক জনকে বিয়ে করা অবৈধ। সে যাতে সাজা পায় সেজন্য তিনি স্ত্রীর বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করবেন।

গজারিয়া থানার এসআই অলিআর রহমান জানান, নিখোঁজের অভিযোগের ভিত্তিতে মোবাইল ফোন ট্রাকিং-এর মাধ্যমে ময়মনসিংহের গৌরীপুর উপজেলা থেকে তাকে উদ্ধার করা। তবে তাকে সেখান যে নিয়ে গেছে সেই রায়হানকে আটক করা সম্ভব হয়নি।

error: দুঃখিত!