৩০শে মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ
বৃহস্পতিবার | বিকাল ৪:০৮
Search
Close this search box.
Search
Close this search box.
মুন্সিগঞ্জে থানায় অভিযোগ দিয়ে ফেরার সময় ভুক্তভোগীর উপর হামলার চেষ্টা
খবরটি শেয়ার করুন:

মুন্সিগঞ্জ, ৩০ এপ্রিল, ২০২১, বিশেষ প্রতিনিধি (আমার বিক্রমপুর)

মুন্সিগঞ্জের সিরাজদিখানের বালুরচরে গাড়ি ভাঙচুরের অভিযোগ থানায় দিয়ে বাড়ি ফেরার পথে সন্ত্রাসী হামলার মুখে পরে ভুক্তভোগী বরকত উল্লাহসহ (২৮) কয়েকজন। সে উপজেলার বালুচর ইউনিয়নের কয়রাখোলা গ্রামের মৃত আবুল কাশেমের ছেলে। এ সময় সামনে পুলিশের গাড়ি থাকায় হামলা থেকে রক্ষা পেয়ে যায় তারা।

ঘটনাটি ঘটেছে বৃহস্পতিবার দিবাগত রাত ১২ টার দিকে উপজেলার লতব্দি ইউনিয়নের পুর্বরামকৃষ্ণদী গ্রামের তিন রাস্তার মোড়ে।

বরকত উল্লাহ জানান, চাঁদা না দেওয়ায় বৃহস্পতিবার দুপুরে আমার একটি ড্রাম ট্রাক লতব্দি ইউনিয়নের পূব রামকৃষ্ণদী গ্রামের ইবনে ছউদ (লক্ষনের) ছেলে জহিরের নির্দেশে ভাঙচুর করে। তার ভাতিজা এছাকের নেতৃত্বে দলবল নিয়ে ভাঙচুর চালায় তারা। গত রাতে আমি থানায় গিয়ে তাদের বিরুদ্ধে অভিযোগ করি। আমি থানায় এসেছি বিষয়টি তারা অবগত হয়। তারা চাঁদাবাজ সন্ত্রাসী, তাই আমি থানা পুলিশকে বলি এত রাতে এ রাস্তা দিয়ে আমি বাড়ি গেলে ওড়া আমাকে রাস্তায় আটকে মারধর করবে। পুলিশ প্রথমে গুরুত্ব না দেওয়ায় আমি বলি ওড়া কতটা খারাপ তার প্রমান পাবেন, আপনারা আমাকে বাড়ি এগিয়ে দিয়ে আসেন দেখবেন রাস্তায় ওরা এটাক করবে। তখন পুলিশের একটি গাড়ি ঐ এলাকায় ডিউটিতে ছিলো। সে গাড়িতে উপ-পরির্শক রাজু ও আরো ৩ জন সঙ্গীয় ফোর্স নিয়ে তারা ঐ এলাকায় আমাদের মাইক্রোর সামনে যাচ্ছিলো। পূর্ব রামকৃষ্ণদী ৩ রাস্তার মোড়ে যাওয়ার আগেই একটি সিএনজি দিয়ে রাস্তা ব্যারিকেড দিয়ে রাখে। এ সময় আমাদের গাড়ির সামনে থাকা সিএনজি থেকে পুলিশ নামতে দেখে ৩জন তারা দৌড়ে পালিয়ে যায়। তবে পুলিশ সিএনজির চালককে জিজ্ঞেস করে তাদের নাম জেনেছে।

সিরাজদিখান থানার উপ-পরিদর্শ রাজু আহমেদ বলেন, বিষয়টি ওসি স্যার ও সার্কেল স্যার অবগত আছেন। স্যারদের সাথে কথা বলেন।

সিনিয়র সহকারি পুলিশ সুপার সিরাজদিখান (সার্কেল) রাজিবুল ইসলাম জানান, আসলে ঘটনাটি এমন না। রাতে টহল পুলিশ ঐ এলাকায় যাচ্ছিল। রাস্তায় একটি সিএনজি দাড়িয়ে ছিলো। কোন লোকজন ছিলো না।

error: দুঃখিত!