১৮ই জুলাই, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ
বৃহস্পতিবার | ভোর ৫:৩৯
Search
Close this search box.
Search
Close this search box.
প্রথমে স্ত্রী ও পরে মেয়েকে হত্যা করেন মুন্সিগঞ্জের শাহিন
খবরটি শেয়ার করুন:

মুন্সিগঞ্জ, ২৪ মার্চ, ২০২৩, নিজস্ব প্রতিনিধি (আমার বিক্রমপুর)

দ্বিতীয় বিয়ে ও কন্যা সন্তান জন্ম হওয়ার খবর পেয়ে গেলে প্রথম স্ত্রী নার্গিস আক্তারের সঙ্গে দাম্পত্য কলহের সৃষ্টি হয়। এতে দ্বিতীয় স্ত্রী রিম্পা খাতুনকে এক বছরের কন্যা সন্তানকে নিয়ে পাবনায় গ্রামে যেতে বলা হয়।

এতে রাজি না হওয়ায় বাকবিতন্ডার এক পর্যায়ে রাগের মাথায় প্রথমে দ্বিতীয় স্ত্রী রিম্পা খাতুনকে শ্বাসরোধে হত্যার পর একইভাবে এক বছরের কন্যা আমেনা খাতুনকেও শ্বাসরোধে হত্যা করেন মুন্সিগঞ্জের শ্রীনগরের বালাশুর গ্রামের তৈয়ব পাহাড়ের ছেলে শাহিন পাহাড় (৩২)।

বৃহস্পতিবার ভোর সকালে ঢাকার কদমতলী থানার মুরাদপুর মাদ্রাসা রোডের ভাড়া বাসা থেকে গ্রেপ্তারের পর পিআইবি’র জিজ্ঞাসাবাদে এভাবেই শ্রীনগরের আলোচিত মা-মেয়ে হত্যাকান্ডের বিস্তারিত তথ্য তুলে ধরেন ঘাতক শাহিন পাহাড়।

পরে বিকালে জেলা শহরের পার্শ্ববর্তী নয়াগাঁও এলাকার পিবিআই কার্যালয়ে এক প্রেস ব্রিফিংয়ে এসব তথ্য জানান পিবিআই পুলিশ সুপার মোহাম্মদ আনোয়ারুল হক।

জিজ্ঞাসাবাদে ঘাতক ও মামলার আসামী পাহাড় জানান, হত্যার পর মা ও মেয়ের মৃতদেহ দুটি লেপ দিয়ে মুড়িয়ে ও প্রিন্টের বিছানার চাদর দিয়ে বেঁঁধে বসতঘর তালা দিয়ে বালাশুর নিজ বাড়ীতে প্রথম স্ত্রীর সাথে দেখা করেন। পরে পুনরায় ঘটনাস্থলে যেয়ে তার পরিচিত হাসেম মিয়ার মিশুক ভাড়া করে কুমাড়পাড়া থেকে লেপ তোষক কেনার কথা বলে এবং হত্যাকান্ডের ঘটনা গোপন করে রাত ৯টার দিকে হত্যাকান্ডস্থলে রওনা হয়। পরে হত্যাকান্ডের স্থলের পাশে মিশুক রেখে লেপ দিয়ে মোড়ানো মৃতদেহ মিশুকে উঠিয়ে চালককে বুঝতে না দিয়ে কোলাপাড়া যেতে বলে। পথিমধ্যে রাত সাড়ে ১০টার দিকে শ্রীনগর উপজেলার ব্রাম্ম্রন পাইকশা এলাকায় পৌছে মিশুক থামিয়ে লেপ চাদর বাসায় নিয়ে লাভ নেই বলে ঘাতক শাহিন পাহাড় সড়কের পাশের একটি জলাশয়যুক্ত জমিতে মৃতদেহ দুটি ফেলে দিয়ে ঘাতক শাহিন পাহাড় নিজ বাড়িতে চলে আসেন।

প্রেস ব্রিফিংয়ে পিবিআই পুলিশ সুপার বলেন, গত বছরের ৮ মার্চ মুন্সিগঞ্জের শ্রীনগর উপজেলার ব্রাক্ষন পাইকশা গ্রামে জনৈক শাহাদাত হোসেন নাছিরের মালিকানাধীন একটি জলাশয়ের জমিতে লেপ মোড়ানো ও প্রিন্টের বিছানার চাদর বাঁধা অবস্থায় রিম্পা খাতুন ও তার ১ বছরের শিশু কন্যা আমেনার মৃত দেহ উদ্ধার করে পুলিশ। এ ঘটনায় এসআই আপন কুমার মজুমদার বাদী হয়ে শ্রীনগর থানায় হত্যা মামলা রুজু করেন।

পিবিআই জানায়, আসামী শাহিন পাহাড় তার স্বীকারোক্তিতে জানান, প্রথম স্ত্রী নার্গিস আক্তারকে না জানিয়ে রিম্পা খাতুনকে দ্বিতীয় স্ত্রী হিসেবে বিয়ে করেন শাহিন পাহাড়। বিয়ের পরে রিম্পা খাতুনকে নিয়ে শ্রীনগর উপজেলার মধ্য কামাড়গাঁও গ্রামে ভাড়া বাড়িতে বসবাস করতেন শাহিন পাহাড়।

error: দুঃখিত!