১৮ই জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ
মঙ্গলবার | ভোর ৫:৪০
Search
Close this search box.
Search
Close this search box.
ইসির শোকজ, আদালতে হাজির হয়ে যা বললেন মৃণাল কান্তি দাস
খবরটি শেয়ার করুন:

মুন্সিগঞ্জ, ২ ডিসেম্বর ২০২৩, নিজস্ব প্রতিনিধি (আমার বিক্রমপুর)

সড়ক বন্ধ করে সভা সমাবেশ করায় আচরণবিধি লঙ্ঘনের দায়ে নির্বাচনী অনুসন্ধান কমিটির করা কারণ দর্শানোর নোটিশ (শোকজ) এর বিষয়ে স্বশরীরে হাজির হয়ে ব্যাখ্যা দিয়েছেন মুন্সিগঞ্জ-৩ আসনের আওয়ামী লীগের প্রার্থী মৃণাল কান্তি দাস।

শনিবার সকাল ১১ টার দিকে যুগ্ম জেলা ও দায়রা জজ আদালত-২ এর বিচারক ও মুন্সিগঞ্জ ৩ নির্বাচনি অনুসন্ধান কমিটির চেয়ারম্যান ফাহমিদা খাতুনের আদালতে উপস্থিত হন মৃণাল কান্তি দাস। পরে ঘন্টাব্যাপি উপস্থিত থেকে লিখিত ব্যাখ্যা প্রদান করেন তিনি।

আদালত থেকে বের হয়ে উপস্থিত গণমাধ্যমকর্মীদের প্রশ্নের উত্তরে মৃণাল কান্তি দাস বলেন, সেদিনের ঘটনাটি অনভিপ্রেত (ইচ্ছার বিরুদ্ধ)। এতে আমার সংশ্লিষ্টতা ছিলো না। আমি আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পাওয়ায় এলাকার মানুষ উচ্ছ্বসিত ছিলো। ঢাকা থেকে মুন্সিগঞ্জ পৌছালে সাধারণ মানুষ আমাকে ঘিরে উচ্ছাস করেছে। আমি ২-১ মিনিট কথা বলে তাদের আচরণ বিধি মেনে চলার আহবান জানিয়েছি।

তিনি আরো বলেন, আমি নির্বাচনের আচরণ বিধির শতভাগ মেনে চলবো। নির্বাচন কমিশন যে আইন করেছে তা কোনভাবেই গণতন্ত্র প্রিয় মানুষরা প্রশ্নবিদ্ধ বা বিতর্কিত করতে চাইবে না, সেই দলের মানুষও আমি। নির্বাচন কমিশনের সকল আইন শতভাগ মেনে চলার জন্য সচেষ্ট থাকবো। দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন যেনো অবাধ, সুষ্ঠুভাবে এবং অংশগ্রহণমূলকভাবে করতে পারে এবং ভোটারদের ভোটাধিকার নিশ্চিত করতে পারে সে বিষয়ে নির্বাচন কমিশনকে সহযোগিতা করবো।

প্রসঙ্গত, গেল ২৭ নভেম্বর জেলা শহরের সুপারমার্কেট এলাকায় মৃণাল কান্তি দাসের উপস্থিতিতে সমাবেশ ও মোটর সাইকেল শোডাউন করে নেতাকর্মীরা। এ ঘটনায় সড়কে যানবাহন চলাচলে প্রতিবন্ধকতা ও নির্বাচনী আচরণ বিধিভঙ্গের বিষয়ে সদর উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান নাজমুল হাসান সোহেল নির্বাচন অনুসন্ধান কমিটির কাছে লিখিত অভিযোগ করে। অভিযোগের প্রেক্ষিতে গত ৩০ নভেম্বর মৃণাল কান্তি দাসকে আচরণ বিধি ভঙ্গের অভিযোগে শোকজ নোটিশ পাঠায় নির্বাচন অনুসন্ধান কমিটি।

error: দুঃখিত!