২৯শে জানুয়ারি, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ
শনিবার | রাত ১:০৬
ইউপি নির্বাচন: মুন্সিগঞ্জে নৌকার বিপক্ষের প্রার্থীকে সমর্থন তৃনমূলের
খবরটি শেয়ার করুন:

মুন্সিগঞ্জ, ৪ অক্টোবর, ২০২১, শ্রীনগর প্রতিনিধি (আমার বিক্রমপুর)

মুন্সিগঞ্জের শ্রীনগর উপজেলার আটপাড়া ইউনিয়ন পরিষদের আসন্ন ইউপি নির্বাচনকে সামনে রেখে গতবারের নৌকার বিপক্ষে অবস্থানকারী চেয়ারম্যান প্রার্থী পোষাক ব্যান্ড দর্জি বাড়ির কর্ণধার ফজলুর রহমানকে (ফুল চাঁন) রহস্যজনক কারণে এবার সমর্থন জানিয়েছে আওয়ামী লীগের তৃনমূল নেতারা। এ নিয়ে ইউনিয়নব্যাপী আওয়ামী লীগের ত্যাগী আরেক বড় অংশের নেতাকর্মীদের মধ্যে ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে।

জানা যায়, গত শনিবার সকালে আটপাড়া ইউনিয়নের তারাটিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের একটি শ্রেনী কক্ষে ইউনিয়ন আ.লীগের বর্ধিত সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় ওয়ার্ড আ.লীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকরা সমর্থন জানান গতবারের আ.লীগ মনোনীত পদপ্রার্থীর বিরুদ্ধে অবস্থানকারী ফজলুর রহমানকে।

এনিয়ে নৌকার মনোনয়ন প্রত্যাশী অন্যান্য চেয়ারম্যান প্রার্থীদের মধ্যে চরম হতাশার সৃষ্টি হয়। এ নিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেইসবুকে সমালোচনার ঝড় বইছে।

স্থানীয় অপর অংশের নেতাকর্মীরা জানান, নৌকার বিপক্ষে অবস্থানকারী প্রার্থীকে তৃনমূলের এই রহস্যজনক সমর্থনকে তারা কোনভাবেই মেনে নিতে পারেছেন না।

অনুসন্ধানে জানা যায়, গত ইউপি নির্বাচনে আটপাড়া ইউনিয়নে আ.লীগের মনোনীত পদপ্রার্থী তৎকালীন ইউনিয়ন সভাপতি বিল্লাল হোসেন খানের (নৌকা) বিরুদ্ধে বিদ্রোহী হিসেবে (চশমা মার্কা) নৌকার প্রতীকের বিপক্ষে অবস্থান নেয় দর্জি বাড়ির কর্ণধার ফজলুর রহমান। এছাড়া নির্বাচনে অংশ নেন বিএনপির মনোনীত চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী শ্রীনগর উপজেলা জিয়া পরিষদের সভাপতি জিল্লুর রহমান জিল্লু (ধানের শীষ) ও বিএনপির সমর্থক তৎকালীন ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আইয়ুব আলী খান (আনারস)।

ভোটের মাঠে আ.লীগের দ্বন্দ্ব ও ভোট ভাগাভাগির সুযোগে বিএনপি সমর্থিত আইয়ুব আলী খান পুনরায় চেয়ারম্যান নির্বাচিত হন।

সূত্র মতে জানা যায়, আনারস প্রতীক নিয়ে প্রায় ৩৭’শত ভোটে বর্তমান চেয়ারম্যান আলহাজ আইয়ুব আলী খান জয়লাভ করেন। অপরদিকে নৌকার বিপক্ষে অবস্থানকারী ফজলুর রহমানের চশমা মার্কা নিয়ে প্রায় সাড়ে ৩ হাজার ভোট পেয়ে দ্বিতীয় ও বিল্লাল হোসেন নৌকা প্রতীক নিয়ে প্রায় ১ হাজার ৯’শত ভোট পেয়ে তৃতীয় হন। ধানের শীষ প্রতীক সর্বনিম্ন ভোট পেয়ে বিএনপি মনোনীত প্রার্থী জিল্লুর অবস্থান চতুর্থ ছিল।

আটপাড়া ইউনিয়ন আ.লীগের সাধারণ সম্পাদক জাকির হোসেনের কাছে এ বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন, ২০১৬ সালে ফজলুর রহমান নৌকার মনোনয়ন চেয়ে এমপির বাসায় তৃনমূল ভোটে হেরে যান। পরে আ.লীগের মনোনীত প্রার্থীর বিপক্ষে চশমা মার্কা নিয়ে অবস্থান করে চেয়ারম্যান প্রার্থী হয়েছিলেন। এ কারনে গত শনিবারের ইউনিয়ন আ.লীগের বর্ধিত সভায় তার কোন সমর্থন ছিলনা।

সভাপতি আব্দুল হাই সিকদারের কাছে জানতে চাইলে তিন এ বিষয় এড়িয়ে যান।

আটপাড়া ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান ও ইউনিয়ন আ.লীগের সাবেক সভাপতি বিল্লাল হোসেন খানের কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, বর্ধিত সভায় আমাকে ডাকা হয়নি। গত নির্বাচনে আমি নৌকার প্রার্থী ছিলাম। এর আগে তৃনমূল ভোটে আমার থেকে ৪ ভোট কম পেয়েছিলেন ফজলুর রহমান। পরে তিনি নৌকার বিপক্ষে প্রার্থী হন।

এ বিষয়ে ফজলুর রহমানের (ফুলচাঁন) বক্তব্য জানতে একাধিকবার যোগাযোগের চেষ্টা করেও কথা বলা সম্ভব হয়নি।

error: দুঃখিত!