শ্রীনগরে কয়কীর্ত্তন-সেলামতি রাস্তা নিয়ে চরম দূর্ভোগে এলাকাবাসি

মুন্সিগঞ্জের শ্রীনগরে কয়কীর্ত্তন-সেলামতি প্রায় ৩ কিলোমিটার ইট সলিং রাস্তার করুণ দশার কারণে কয়েক হাজার মানুষের পোহাতে হচ্ছে চরম দুর্ভোগ।

রাস্তাটি শ্যামসিদ্ধি ইউনিয়নের একটি গুরুত্বপূর্ণ রাস্তা হিসেবে পরিচিত। ঢাকা-শ্রীনগর-দোহার সড়কের সাথে সংযোগ রাস্তা হওয়াতে প্রতিদিন হাজারো মানুষের চলাচল করতে হয়।

প্রায় দশ বছর পূর্বে রাস্তায় ইট বিছানো হলেও কার্পেটিংয়ের কাজ আর হয়নি। এতে করে দীর্ঘদিনের ইট ভেঙ্গে ও উঠে গিয়ে পুরোরাস্তায় ছোট বড় ভাঙ্গনসহ খানাখন্দের সৃষ্টি হয়েছে। বিকল্প রাস্তা না থাকায় ওই এলাকার মানুষ বাধ্য হয়ে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে অটোরিকশা, ভ্যান, মোটরসাইকেলে করেই চলাচল করছে। এতে করে সুস্থ মানুষ অসুস্থ হয়ে পরছে। অপরদিকে রাস্তা খারাপের অজুহাতে চালকরা অতিরিক্ত ভাড়া আদায় করছেন।

স্থানীয়রা জানান, কয়কীর্ত্তন, বাগবাড়ী, সেলামতি, গাদিঘাট, শ্যামসিদ্ধিসহ প্রায় সাত থেকে আটটি গ্রামের মানুষ প্রতিনিয়ত এই রাস্তায় দিয়ে চলাচল করে। রাস্তার অবস্থা খুব খারাপ হওয়ায় তাদের পোহাতে হচ্ছে চরম দুর্ভোগ। কোন প্রকার যানবাহন ঐ রাস্তায় চলাচল করতে চায় না। স্কুল কলেজে পড়ুয়া শিক্ষার্থীসহ কর্মজীবী মানুষের কয়েক কিলোমিটার পথ পায়ে হেঁটেই চলাচল করতে হয়।

বর্ষার দিনে ভাঙ্গাচুরা রাস্তায় বৃষ্টির পানি জমে কাঁদার সৃষ্টি হয়। এর ফলে মানুষের হাঁটা চলাফেরায় অনুপযোগী হয়ে পরে। হঠাৎ মানুষের অসুখ-বিসুখে চিকিৎসা সেবা নিতে উপজেলা সদর কিংবা বিভিন্ন স্থানের হাসপাতালসহ স্বাস্থ্য কেন্দ্রে যেতে বেহাল রাস্তার কারণে তাদের দুর্ভোগ আরো বেড়ে যায়। স্থানীয়দের দাবি সংশ্লিষ্টদের নজরে নিয়ে রাস্তাটি খুবদ্রুত কার্পেটিংয়ের কাজ করা প্রয়োজন।

শ্রীনগর উপজেলার ভাইস চেয়ারম্যান ওয়াহিদুর রহমান জিঠু জানান, আমি এই ইউনিয়নের সন্তান এবং ইউনিয়নের জনগণ আমাকে গত নির্বাচনে বিপুল ভোটে নির্বাচিত করেছেন। আমি সম্মানিত স্থানীয় এমপি, উপজেলা চেয়ারম্যানসহ সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের সাথে রাস্তাটির বিষয়ে দ্রুত আলোচনা করবো।

উপজেলা প্রকৌশলী মো. আব্দুল মান্নানের কাছে রাস্তাটির করুণ দশার বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন, ওই রাস্তার কার্পেটিং কাজের জন্য প্রকৌশলী অফিস থেকে আবেদন করা হয়েছে

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

error: দুঃখিত!