যে ৫টি তথ্য ‘গুগল’ করবেন না কখনোই!

দৈনন্দিন জীবনকে অনেক সহজ করে দিয়েছে গুগল। পেশাজীবী, শিক্ষার্থী থেকে শুরু করে একজন গৃহিণীরও নিত্যদিনের অনেক কাজে আসে গুগল। আপনার যে তথ্যই দরকার হোক না কেন, তা গুগলে পাওয়া যাবে এটা মোটামুটি নিশ্চিত। তবে গুগল ব্যবহারের কিছু সমস্যাও আছে। কিছু তথ্য গুগল করলে আপনি ঝামেলায় পড়ে যেতে পারেন। এ কারণে ৫টি তথ্য কখনোই গুগল করা যাবে না-

১) আপনি যেসব জিনিসের বিজ্ঞাপন দেখতে চান না

গুগলে কোনো একটি লিপস্টিকের নাম দিয়ে সার্চ করলেন। নিশ্চিত থাকতে পারেন আগামী কয়েক সপ্তাহ ধরে ফেসবুক ও অন্যান্য সাইটে আপনি কেবলই লিপস্টিকের বিজ্ঞাপন দেখতে থাকবেন। তাই যেসব জিনিসের বিজ্ঞাপন দেখতে চান না, সেগুলো সার্চ না করাই ভালো।

২) লজ্জাজনক কোনো তথ্য

আপনি এমন একটা তথ্য গুগল করলেন যা অন্যরা জানতে পারলে আপনাকে লজ্জায় পড়তে হবে। এমনকি এই তথ্যটা দিয়ে আপনাকে ব্ল্যাকমেইলও করা যাবে! সেইরকম তথ্য গুগলে দেওয়াই যাবে না। এমনকি আপনি সার্চ হিস্ট্রি ডিলিট করে দিলেও কোথাও না কোথাও সেই তথ্য থেকে যাবে। আপনি যদি রাজনীতিবিদ বা এ ধরনের প্রভাবশালী ব্যক্তিত্ব হন তাহলে গুগল সার্চের সময়ে খুবই সতর্ক থাকুন।

৩) অপরাধ সংক্রান্ত তথ্য

তথ্যটি ফাঁস হয়ে গেলে আপনার জেল-জরিমানা হতে পারে- এমন তথ্য গুগলে দেওয়া যাবে না। কারণ আপনার প্রতি সন্দেহ হলে খুঁজতে খুঁজতে ওই সার্চ হিস্ট্রি বের করে ফেলবে পুলিশ।

৪) স্বাস্থ্য সমস্যা

আপনার মুখে নতুন একটা তিল উঠেছে, পেট ব্যথা করছে, ক্লান্ত লাগছে, বা পা চুলকাচ্ছে- এসব উপসর্গ গুগল করলে কোনো লাভই হবে না আপনার। বরং গুগল সার্চের রেজাল্ট দেখে আপনার মনে হতে পারে আপনি মারা যাচ্ছেন। স্বাস্থ্য সমস্যায় ডাক্তার দেখানোটাই ভালো।

৫) পণ্যের নিরাপত্তা

ধরুন, আপনি কোনো খাবার বা প্রসাধনী কিনেছেন। এটা খাওয়া বা ত্বকে মাখাটা নিরাপদ কিনা জানতে গুগল করলেন- এতে নিঃসন্দেহে আপনি ক্ষতিগ্রস্ত হবেন। কারণ ইন্টারনেটে প্রচুর মানুষ ও তাদের ভিন্ন ভিন্ন মতামত রয়েছে। কোথাও আপনি দেখবেন পণ্যটি খাওয়া বা মাখা নিরাপদ। অন্য জায়গায় দেখবেন সেই একই পণ্য খেয়ে বা মেখে কেউ অসুস্থ হয়ে গেছে। এসব ক্ষেত্রে ডাক্তারকে বা ওই পণ্য যে কোম্পানি থেকে কিনেছেন তাদের সাথে কথা বলুন।

সূত্র: রিডার্স ডাইজেস্ট

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

error: দুঃখিত!