মুন্সিগঞ্জে ঈদের পরদিন ককটেল বিস্ফোরণ, বাড়িঘর ভাঙচুর, পাল্টাপাল্টি অভিযোগ

ইভটিজিংয়ের ঘটনাকে কেন্দ্র করে মুন্সীগঞ্জের চরাঞ্চলের মোল্লাকান্দি ইউনিয়ন পরিষদের বর্তমান চেয়ারম্যান ও সাবেক চেয়ারম্যান গ্রুপের মধ্যে দফায় দফায় হামলা পাল্টা হামলা, বাড়িঘর ভাঙচুর ও লুটপাটের ঘটনা ঘটেছে।

এ সময় শতাধিক ককটেল বিস্ফোরণ ও নারী-পুরুষসহ অন্তত ১২ জন আহত হয়েছে।

মঙ্গলবার সকালে ইউপি চেয়ারম্যান মহসিনা হক কল্পনার আমঘাটার বাড়িতে হামলা ও ভাঙচুরের ঘটনা ঘটেছে। এই অপ্রীতিকর ঘটনার জন্য বর্তমান চেয়ারম্যান ও সাবেক চেয়ারম্যান একে অপরকে দোষারপ করেছেন।

মোল্লাকান্দি ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান রিপন পাটোয়ারি জানান, চেয়ারম্যান মহসিনা হক কল্পনার গ্রুপের আমঘাটা গ্রামের ফয়জুল দেওয়ানের বখাটে ছেলে মাসুম ঈদের দিন বিকেলে একই গ্রামের স্কুল পড়ুয়া একটি মেয়েকে ইভটিজিং করে। এর প্রতিবাদ করলে ইভটিজিংয়ের শিকার স্কুল ছাত্রীর মামা কালামের সাথে বখাটে সোহাগের হাতাহাতির এক পর্যায়ে মারধর করা হয়।

পরে মঙ্গলবার বেলা ১১টার চেয়ারম্যান কল্পনার নেতৃত্বে তার পক্ষের তাজু (২২), সাকিব (২৩), সজীব (২১) ও রানা (২০)-কে লোকজন নিয়ে মারধর করে। তাদেরকে মুন্সিগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে এবং তার বাড়িতেও কল্পনা গ্রুপ ককটেল বিস্ফোরণ করেছে বলে সাবেক চেয়ারম্যান রিপন পাটোয়ারি দাবি করেছেন।

মোল্লাকান্দি ইউনিয়নের বর্তমান চেয়ারম্যান মহসিনা হক কল্পনা জানিয়েছেন, সোমবার বিকেলে একটি তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে রিপন পাটোয়ারি গ্রুপের লোকজন মঙ্গলবার সকালে তার বাড়িতে হামলা চালায়। এ সময় ৫-৭ বাড়িঘর ভাঙচুর ও লুটপাট চালায়। শত শত ককটেল বিস্ফোরণ যায়। এ সময় তার পক্ষের তাসলিমা (৩৫), মাসুম (২১), সানি (১৭) লিপি বেগম(৩৫), মজিদ মোল্লা (৬৫)সহ কয়েকজন আহত হয়।

এ ব্যাপারে সদর থানার ওসি তদন্ত গাজী সালাউদ্দিন জানান, ঘটনার খবর পেয়ে পুলিশি অভিযান চলছে। তদন্ত করে ঘটনার সাথে জড়িতদের আইনের আওতায় আনা হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

error: দুঃখিত!