শ্রীনগরে ব্রীজ দখল করে দোকান ঘর

মুন্সিগঞ্জ, ১৪ সেপ্টেম্বর, ২০২০, শ্রীনগর প্রতিনিধি (আমার বিক্রমপুর)

মুন্সিগঞ্জের শ্রীনগরে ব্রীজ দখল করে দোকান ঘর নির্মাণ করা হয়েছে। যত্রতত্র মানুষ চলাচলের স্থলে এবস দোকান ঘর থাকার কারণে পথচারীদের দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে।

শ্রীনগর বাজার সংলগ্ন নতুন ও পুরাতন ব্রীজের মাঝখানে পূর্ব-পশ্চিম পাশে ঝূঁকিপূর্ণভাবে কয়েকটি দোকান ঘর নির্মাণ করা হয়েছে।

এছাড়াও সার্বক্ষনিক ব্রীজ ২টি দখল করে বিভিন্ন ভাসমান দোকানপাট থাকায় জনসাধারণের চলাচলে বিঘ্ন ঘটছে।

অপরদিকে ব্রীজগুলো দখল করে অটোরিক্সার স্ট্যান্ড বানিয়ে রাখা হয়েছে। এতে করে ব্রীজে দীর্ঘ জ্যাম জটের সৃষ্টি হচ্ছে।

সরেজমিনে দেখা গেছে, ওই ২ ব্রীজের মাঝখানের পূর্ব পাশে একটি কাপড়ের দোকান গড়ে উঠেছে। দোকানী ওমর ফারুক জানান, তিনি এখানে ভাড়ায় দোকান নিয়েছেন। রহস্যজন কারণে তিনি এ বিষয়ে মুখ খুলতে চালনি।

ব্রীজের পশ্চিম পাশে বাদল শেখ, নিরঞ্জন দাস, শংকর সাহা অনেকেই বিভিন্ন ব্যবসা প্রতিষ্ঠান খুলে বসেছেন। এ বিষয়ে তারা কোনও প্রকার মুখ খুলতে রাজি হননি।

এছাড়াও লক্ষ্য করা গেছে, শ্রীনগর সার্কেল অফিসের মূল ফটকের পাশে ও পোষ্ট অফিস সংলগ্ন ব্রীজের ওপর দুই পাশে বিভিন্ন ভাসমান দোকান পাট সাজিয়ে বসা হয়েছে। এছাড়াও এখানে রীতিমত বানানো হয়েছে ইজিবাইকের স্ট্যান্ড। ব্যস্ততম রাস্তার ওপর এভাবে অটোরিক্সার স্ট্যান্ড ও যত্রতত্র দোকান পাটের কারণে মানুষের পায়ে হাটা চলাফেরা করাটাই মুশকিল। মাঝেমধ্যে প্রশাসনের তোপের মুখে সটকে পরলেও পরক্ষনে জমে উঠে এসব দোকান পাট। পথচারী রিয়াদ হোসেন, কলেজ ছাত্র রাকিব হাসান, বোরহানসহ অনেকেই বলেন, ব্রীজগুলো দখলে থাকে বিভিন্ন ভাসমান দোকানি ও অটো চালকদের কাছে। এখানকার দৃশ্য দেখে মনে হয় ব্রীজের নিয়ন্ত্রণ তারাই করছে। মানুষের দুর্ভোগ লাঘবে সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের হস্তক্ষেপ কমনা করেন তারা।

এব্যাপারে শ্রীনগর উপজেলা নির্বাহী অফিসার রহিমা আক্তার জানান, এর আগে এসব দোকানিদের সর্তক করা হয়েছিল। গত আইন-শৃংখলা মিটিংয়ে বিষয়টি আলোচনায় উঠে আসে। নিয়মবিধি অমান্যকারীদের বিরুদ্ধে আইগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

আপনার মন্তব্য জানান...

error: দুঃখিত!