বিয়ে থেকে ৫ মিনিটের বিরতি নিয়ে ফুটবল খেলতে গেলেন পাত্র!

আগে থেকে জানা ছিল না। বিয়ের দিনই হঠাৎ খবর আসে মাঠে নামতে হবে। এমন প্রস্তাব পেয়ে অবশ্য খেলা পাগল ছেলেটা পড়ে যায় মহা সমস্যায়। বিয়ে করতে যাওয়া বেশি গুরুত্বপূর্ণ নাকি ফুটবল ম্যাচ?

বিয়ের দিনটা সবার কাছেই অনেক গুরুত্বপূর্ণ। স্বাভাবিকভাবেই এই বিশেষ দিনে যাবতীয় কাজকর্ম থেকে ছুটি নেওয়া হয়। তবে প্যাশন বিষয়টা এমনই যে, তার জন্য সবকিছু করা যায়। তারই নিদর্শন রাখলেন কেরালার এক ফুটবলার। হবু স্ত্রীর কাছ থেকে পাঁচ মিনিট সময় নিয়ে চলে গেলেন মাঠে। সৃষ্টি করলেন অনন্য এক উদাহরণ।

এমন গল্প রোজ রোজ তৈরি হয় না। শতাব্দীতে একটা দুটোই হয়। আর যা চিরকালীন উদাহরণ হয়েই থেকে যায়।

ঘটনাটি ঘটেছে ভারতের কেরালা রাজ্যে। ওই ফুটবলারের নাম রিদভান। বিয়ের দিনই জানতে পারেন, রাজ্য দল মল্লপুরমের হয়ে খেলতে হবে তাকে। রক্ষণভাগের এই খেলোয়াড় তৎক্ষণাৎ সিদ্ধান্ত নেন, খেলা শেষ করে এসেই তবে বিয়ের পিঁড়িতে বসবেন। বিয়ের মঞ্চ থেকে যাওয়ার আগে স্ত্রীকে রিদভান বলেন, ‘আমি ৫ মিনিটে আসছি’।

বিয়ে থেকে বিরতি নিয়ে ম্যাচ খেলতে যাওয়ার সিদ্ধান্ত রিদভানের দলের জন্য লাভজনকই হয়েছিল। দলকে জয় এনে দিতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেন রক্ষণভাগের এই খেলোয়াড়। তবে তার ওপর রেগে যান হবু স্ত্রী ও তার পরিবার। কারণ বিয়ে থেকে পাঁচ মিনিটের বিরতি নিলেও ম্যাচটা পাঁচ মিনিটে শেষ হয়নি।

ভারতীয় সংবাদ মাধ্যমের বরাতে জানা যায়, এমন ঘটনায় ক্ষোভই প্রকাশ করেছে রিদভানের হবু স্ত্রী ও তার পরিবার। তারা এও বলেছে যে, ‘ম্যাচটা যদি দুপুরে থাকত, তবে কি ও ম্যাচের জন্য বিয়েটাই বাতিল করে দিত?’

খেলা শেষে বিয়ের পিঁড়িতে ফিরে অবশ্য রিদভান তার হবু স্ত্রী ও পরিবারকে শান্ত করেন। এরপর খুশিমনে বিয়ের পিঁড়িতে বসেন এই ডিফেন্ডার। এই খবর জানাজানি হতেই তা নজরে আসে কেন্দ্রীয় যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রী রাজ্যবর্ধন সিং রাঠোরের। খেলার প্রতি তরুণ এই ফুটবলারের দুরন্ত প্যাশনকে কুর্নিশ জানিয়েছেন তিনি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

error: দুঃখিত!