পদ্মা সেতু: করোনা আতঙ্কের মধ্যেও সুখবর

মুন্সিগঞ্জ, ৩১ মার্চ, ২০২০, বিশেষ প্রতিনিধি (আমার বিক্রমপুর)

করোনা ভাইরাসের প্রাদুর্ভাবের মধ্যেই চলছে পদ্মা সেতুর কাজ। আজ মঙ্গলবার (৩১ মার্চ) সেতুর ৪২তম পিয়ারের কাজ শেষ হয়েছে। সেতুর অন্যতম চ্যালেঞ্জিং কাজ ছিল প্রমত্তা পদ্মা নদীতে পিয়ার তৈরি করা।

৪২ টি পিয়ারের মধ্যে সর্বশেষ ২৬ নম্বর পিয়ারের কাজ শেষ হয় মঙ্গলবার রাতে।

পদ্মা সেতুর নির্বাহী প্রকৌশলী ও প্রকল্প ব্যবস্থাপক (মূল সেতু) দেওয়ান মোঃ আব্দুল কাদের এ খবর নিশ্চিত করেছেন।

তিনি জানান, “পদ্মাা সেতুর সর্বশেষ ৪২তম পিয়ার, যার আইডি নম্বর পি-২৬, এর কংক্রিটিং এর কাজ দুপুর ১২টায় শুরু হয়েছে। কংক্রিটিং এর কাজ শেষ হতে ১০ ঘন্টার মতো সময় লাগবে। আজ রাত ১০ টার দিকে শেষ হয়ে যাবে সেতুর সব পিয়ার।”

তিনি আরো বলেন, মূল সেতুর ৪২ টি পিয়ার ছাড়াও মাওয়া প্রান্তের ভায়াডাক্টে ৪৪টি পিয়ার ও জাজিরা প্রান্তের ভায়াডাক্টে ৪৭ টি পিয়ার আছে। সব মিলিয়ে ১৩৩ টি পিয়ারের কাজ শেষ হতে যাচ্ছে আজ। সংশোধিত প্রোগাম অনুযায়ী সেতুর শেষ পিয়ার করার লক্ষ্য ছিল ২০২০ সালের ৩০ এপ্রিল।”

তিনি বলেন, এসকল পিয়ার সম্পূর্ণ করতে বেশ কিছু নতুন টেকনোলোজি ব্যবহৃত হয়েছে যা আগে কখনো বাংলাদেশে হয়নি।

সারকথা, পদ্মা সেতু একটি মজবুত সেতু হবে এবং কমপক্ষে ১০০ বছর টিকবে।

এদিকে, গত শনিবার (২৮ মার্চ) সকালে শরীয়তপুরের জাজিরা প্রান্তে পদ্মা সেতুর ২৭তম স্প্যান বসানো হয়। ফলে দৃশ্যমান হয় সেতুর ৪০৫০ মিটার। বর্তমানে ৩৯টি স্প্যান আছে প্রকল্প এলাকায়।

২০১৪ সালের ডিসেম্বরে পদ্মা সেতুর নির্মাণ কাজ শুরু হয়। মূল সেতু নির্মাণের কাজ করছে চীনের ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান চায়না রেলওয়ে মেজর ব্রিজ ইঞ্জিনিয়ারিং গ্রুপ কোম্পানি (এমবিইসি) ও নদীশাসনের কাজ করছে চীনের আরেকটি প্রতিষ্ঠান সিনো হাইড্রো করপোরেশন।

আপনার মন্তব্য জানান...

error: দুঃখিত!