নেশাগ্রস্থ ছেলের হাত থেকে মেয়েকে বাঁচাতে পুরুষাঙ্গ কেটে ছেলেকে হত্যা করেন বাবা-মা

মুন্সিগঞ্জ, ১০ জানুয়ারি, ২০২১, বিশেষ প্রতিনিধি (আমার বিক্রমপুর)

মুন্সিগঞ্জে মাদকাসক্ত কিশোর ছেলের হাত থেকে মেয়েকে ধর্ষণের হাত থেকে বাঁচাতে পুরুষাঙ্গ কেটে ছেলেকে হত্যা করেন বাবা-মা। ঘটনাটি ঘটেছে গজারিয়া উপজেলায়।

১৮ বছর বয়সী মাদকাসক্ত ছেলেকে খুন করার পর বাড়ির পাশের ডোবায় ফেলে দেন বাবা-মা। ঘটনার ১৮ দিন পর গলিত লাশ উদ্ধার করে পুলিশ।

লাশ উদ্ধারের পর ঘটনাটি হত্যাকান্ড নিশ্চিত হয়ে রহস্য উদঘাটনে নামে স্থানীয় পুলিশ। এরপর একপর্যায়ে পরিবারকেই সন্দেহ করেন তারা।

পুলিশকে খুন হওয়া কিশোরের মা হাসিনা বেগম জানান, তিনি স্বপ্নে দেখেছেন প্রতিবেশী শাহ আলম তার ছেলেকে হত্যা করে লাশ ডোবায় ফেলে রেখেছে।

সন্দেহ বাড়তে থাকায় পুলিশ নিহত কিশোর হাসানের বাবা শামীম মিয়া (৪০), মা হাসিনা বেগম (৩৮) ও ছোট বোন শিলা (১৫) কে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য থানায় নিয়ে আসে।

থানায় বেড়িয়ে আসে লোমহর্ষক এই খুনের বর্ণণা। খুন হওয়া হাসান যাকে ধর্ষণের চেষ্টা করে সে তারই আপন ছোট বোন শিলা। যার বয়স মাত্র ১৫ বছর। শিলাই তার আপন ভাইয়ের লিঙ্গ কেটে মৃত্যু নিশ্চিত করে।

থানায় নিহত কিশোরের বাবা-মা ও ছোট বোন তাকে হত্যার কথা জানান।

জিজ্ঞাসাবাদে তারা জানায়, মাদকাসক্ত কিশোর হাসান গত ২১ ডিসেম্বর রাতে তার আপন ছোট বোন শিলা (১৫) প্রকৃতির ডাকে সাড়া দিতে বাথরুমে যাওয়ার পথে তাকে জড়িয়ে ধরে। এ সময় সে তাকে ধর্ষণ করার চেষ্টা করলে তার আত্মচিৎকারে বাবা-মা ছুটে আসেন। এ সময়ে রাগের মাথায় হাসানের মা হাসিনা বেগম তাকে ঘরে নিয়ে মুখে বালিশ চেপে ধরেন আর বাবা শামীম মিয়া তার হাত-পা ধরে রাখেন এবং ছোট বোন শিলা ধারালো ছুরি দিয়ে তার পুরুষাঙ্গ কেটে মৃত্যু নিশ্চিত করেন।

এরপর আসামিদের দেওয়া তথ্যমতে পুলিশ হত্যাকান্ডে ব্যবহৃত ছুরি এবং গামছা উদ্ধার করে।

ছেলে হত্যার দায়ে আটক বাবা-মা ও ছোট বোনকে আজ কোর্টে উঠানো হবে।

আপনার মন্তব্য জানান...

error: দুঃখিত!