তোতার রাজনৈতিক ভবিষৎ কি?

গজারিয়া উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে প্রধান দুই প্রার্থী আওয়ামী লীগের আমিরুল ইসলাম এবং বর্তমান চেয়ারম্যান রেফায়েতুল্লাহ্ খান তোতা। আওয়ামী লীগে জনপ্রিয় আমিরুল ইসলাম গত দুই নির্বাচনে বিপুল ভোটের ব্যবধানে হারেন আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থীদের কাছে।

গত উপজেলা নির্বাচনেও আমিরুলকে হারিয়ে চেয়ারম্যান হন তোতা।

এবছর উপজেলা নির্বাচনে দলের কাছে প্রার্থী হতে চাইলে তৃণমুলের ভোটে আমিরুলের কাছে হারেন তোতা। এরপর আওয়ামী লীগ দলীয় প্রার্থী হিসেবে আমিরুল ইসলামকে মনােনয়ন দেয়। এরপর শুরু হয় নানা নাটকীয়তা। মুন্সিগঞ্জের সবচেয়ে আলোচিত উপজেলা নির্বাচনী এলাকা গজারিয়ায় আওয়ামী লীগ প্রার্থীর ‍বিরুদ্ধে প্রার্থী হওয়ার ঘোষনা দেন তোতা।

তবে সকল নাটকীয়তার অবসান ঘটান আওয়ামী লীগ কেন্দ্রীয় কমিটির প্রভাবশালী নেতা ও স্থানীয় সংসদ সদস্য মৃণাল কান্তি দাস।

মৃণাল কান্তি দাসের হস্তক্ষেপে ‘নৌকা’ মার্কার প্রার্থী আমিরুল ইসলামের কাছে আত্মসমর্পণ করেন রেফায়েতুল্লাহ্ খান তোতা।

তিনি বুধবার (১৩ মার্চ) আমিরুল ইসলামকে পূর্ণ সমর্থন জানিয়ে নিজের প্রার্থীতা প্রত্যাহার করে নেন।

এরপর সর্বত্র আলোচনা চলছে তাহলে তোতার রাজনৈতিক ভবিষৎ কি?

শাহজালাল মোহাম্মদ হাসান নামের একজন ফেইসবুকে লিখেছেন, ‘স্থানীয় আওয়ামী লীগ কিংবা অঙ্গসংগঠন সমূহের রাজনীতিতে তিনি তেমন সক্রিয় না, পাশাপাশি উল্লেখযোগ্য তেমন কোনো পদ ও তিনি ধারন করেন নি। এমতাবস্থায় দুইবারের চেয়ারম্যান এবার নৌকার মনোনয়ন পান নি। স্বতন্ত্র পার্থী হিসেবে কতটা সুবিধা করতে পারবেন তা ঠিক আমার অনুমেয় নয়। তবে যদি চেয়ারম্যান হিসেবে এবারই শেষ দায়িত্ব পালন হয় তাহলে হয়তোবা পূর্বেকার চেয়ারম্যানদের মত আড়ালে চলে যাবেন, ব্যস্ত হয়ে উঠবেন ব্যাক্তিগত জীবন নিয়ে। নতুবা রাজনীতিতে আরো সক্রিয় হয়ে সংসদ নির্বাচনে অংশগ্রহণের চেস্টা চালাতে পারেন।’

সুমন খন্দকার নামে নামের একজন লিখেছেন,‘জনগণ সকল ক্ষমতার উৎস অনেক ব্যক্তিবর্গের মাঝে ক্ষোভ থাকলেও সেটা ভাষায় প্রকাশ করেন না। বিজ্ঞ রাজনীতিবীদদের জনপ্রতিনিধি হিসেবে জনগণের পাশে থাকার যেই সদিচ্ছা সেটা অনেকের মাঝে থাকে না সেজন্যই রাজনীতির পালাবদল করতে হয় আপনি যদি ভালো কাজ করে রাজনীতির মাঠ থেকে বিদায় নেন আপনার মনে কোন কষ্ট থাকবে না আর যদি কোন খারাপ কাজ করে দুর্নীতি-সন্ত্রাস ও মাদকদ্রব্য সহ অনৈতিক কাজের সাথে জড়িত থাকেন তাহলে আপনার মাঠ থেকে বিদায় নেয়ার সময়টা অত্যন্ত বেদনাদায়ক হবে’

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

error: দুঃখিত!