টংগিবাড়ীতে প্রেম করে বাল্য বিয়ে, ইউএনও তুলে দিলেন মায়ের হাতে

মুন্সিগঞ্জ, ১৫ অক্টোবর, ২০২০, টংগিবাড়ী প্রতিনিধি (আমার বিক্রমপুর)

মুন্সিগঞ্জের টংগিবাড়ীতে প্রেম করে বাল্য বিবাহের ঘটনায় কন্যাকে মায়ের জিম্মায় দিয়েছেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকতা (ইউএনও)।

ভূক্তভোগী কন্যার মায়ের অভিযোগের প্রেক্ষিতে প্রাপ্ত বয়স্ক হওয়ার আগ পর্যন্ত ওই কন্যা মায়ের কাছে থাকবে বলে বৃহস্পতিবার দুপুরে মায়ের হাতে কন্যাকে তুলে দেন ইউএনও হাসিনা আক্তার।

জানা গেছে, উপজেলার চাষিরী গ্রামের সোলাইমান ভিস্তির মেয়ে আউটশাহী উচ্চ বিদ্যালয়ের ৮ম শ্রেণীর ছাত্রী মারিয়া আক্তার তার বড় বোনের দেবর একই গ্রামের আমিরুল বেপারীর ছেলে রাকিবুল ইসলাম এর সাথে দীর্ঘদিন যাবৎ প্রেম করে আসছিলো।

গত মঙ্গলবার রাতে প্রেমের সম্পর্কের জেরে তারা পালিয়ে গিয়ে বিয়ে করে গা ঢাকা দেয়।

এ ব্যাপারে মারিয়া আক্তার এর মা টংগিবাড়ী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কাছে অভিযোগ করে। পরে ওই এলাকার লোকজনসহ ওই কনে বরের আত্নীয় স্বজনরা দু-জনকে খুজে উপজেলা নির্বাহী কর্মকতার্র কাছে হাজির করলে কনে মারিয়া আক্তারকে মায়ের জিম্মায় রাখার আদেশ দেন নির্বাহী কর্মকর্তা।

এ ব্যাপারে নির্বাহী কর্মকর্তা হাসিনা আক্তার জানান, যেহেতু কনে অপ্রাপ্তবয়স্ক তারপরেও তারা পালিয়ে বিয়ে করে ফেলেছে তাই প্রাপ্তবয়স্ক হওয়ার আগ পর্যন্ত মেয়েকে তার মায়ের জিম্মায় দেওয়া হয়েছে। প্রাপ্ত বয়স্ক হওয়ার পর মেয়েই সিন্ধান্ত নিতে পারবে।

আপনার মন্তব্য জানান...

error: দুঃখিত!