চাপের মুখে সরে দাড়ালেন ভূতু হালদার?

মুন্সিগঞ্জ, ১৭ নভেম্বর, ২০২০, ডেস্ক রিপোর্ট (আমার বিক্রমপুর)

দলীয় শৃঙ্খলা ভঙ্গের অভিযোগ কাধে নিয়ে অনেকটা চাপের মুখে আওয়ামী লীগ সভাপতির পদ থেকে সরে দাড়িয়েছেন টংগিবাড়ী উপজেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি ভূতু হালদার। তবে তিনি স্বেচ্ছায় না সরলে শীঘ্রই তাকে বহিষ্কার করা হতো।

বহিষ্কারের লজ্জা এড়াতেই তিনি স্বেচ্ছায় অব্যাহতি নিয়ে নিয়েছেন।

জানা যায়, গত ১০ নভেম্বর তিনি অব্যাহতি পত্রটি মুন্সিগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি মহিউদ্দিন আহম্মেদ এর কাছে প্রদান করেন।

এর আগে গত ৩০ সেপ্টেম্বর ২০ইং তারিখে আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মির্জা আজম স্বাক্ষরিত চিঠিতে দলীয় শৃঙ্খলা ভঙ্গের অভিযোগে জগলুল হালদার ভুতুকে আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় সভাপতির নির্দেশনা অনুযায়ী পদ হতে অব্যহতি দিতে নির্দেশ দেয়া হয়।

জগলুল হালদার ভুতু ১৯৮৫ সাল থেকে ২০০০ সাল পযর্ন্ত টংগিবাড়ী উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং ২০০০সাল থেকে ২০২০ সাল পযর্ন্ত সভাপতির দায়িত্ব পালন করেছেন।

২০১৮ সালে জাতীয় সংসদ নির্বাচনের আগে নারী ও হিন্দু নেতৃত্ব বিরোধী বক্তব্য দিয়ে তুমুল বিতর্কের সৃষ্টি করেন জগলুল হালদার ভুতু।

তার বিরুদ্ধে জেলা পর্যায়ের আওয়ামী লীগ নেতারা দীর্ঘদিন ধরেই মুক্তিযুদ্ধের সময় বিতর্কিত ও দেশ বিরোধী ভূমিকার অভিযোগ তুলেছেন বিভিন্ন সময়ে।

আওয়ামী লীগ থেকে অব্যাহতির বিষয়ে জগলুল হালদার ভুতু জানান, উপজেলা আওয়ামী লীগ এর পরবর্তী সহ সভাপতি জহিরুল ইসলাম খান ভারপ্রাপ্ত সভাপতি হিসাবে দায়িত্ব পালন করবেন। আমি তাকে সার্বিক সহযোগিতা করবো।

আপনার মন্তব্য জানান...

error: দুঃখিত!